Featured Posts

[Travel][feat1]

প্রায় ২৫০০ বছর প্রাচীন, একুশটি অসাধারণ চানক্য নীতি - জেনে নিন

মার্চ ০২, ২০২১

 ১। সাধু ব্যক্তির মহিমা কি ? 

সাধু ব্যক্তিরা গুণহীন জীবনেরও দয়া করে থাকেন।  চাঁদ চন্ডালের গৃহেও জ্যোৎস্না হরণ করে না অর্থাৎ আলো দান করে । 

২। গুনী দুর্জনের সাথে কেমন ব্যবহার করা উচিৎ ? 

 দুর্জন মানুষ বিদ্যার দ্বারা অলঙ্কৃত হলেও তাঁকে পরিহার করা উচিত । সাপ মনিদ্বারা ভূষিত হলেও সে কি ভয়ঙ্কর নয় ? 

৩। বিষধর সাপ না মানুষ বেশী ক্ষতিকর ? 

 সাপ নিষ্ঠুর স্বভাবের , খল বা দুর্জন ব্যাক্তিও নিষ্ঠুর স্বভাবের , কিন্ত খল বা দুর্জন ব্যাক্তি সাপের চেয়েও অধিকতর নিষ্ঠুর স্বভাবের , কারন মন্ত্র ও ঔষধি দ্বারা সাপকে বশে আনা যায় ; কিন্ত খল বা দুর্জন ব্যাক্তিকে কিসের দ্বারা নিয়ন্ত্রন করবে ? 

৪। কার সঙ্গ ভালো ? 

 দুর্জন ব্যাক্তির সংসর্গ ত্যাগ করো , সাধুসঙ্গ ভজনা করো । দিনরাত পুণ্যকাজ করো এবং সম সময় বা অস্থায়ী বস্তুদের স্মরণে রাখো । 

৫।কার কাছে কি শিক্ষা নেবে ?

 বিষ থেকেও অমৃত গ্রহন করবে , অপবিত্র স্থান থেকেও কাঞ্চন অর্থাৎ সোনা তুলে নেবে । নীচ ব্যাক্তি থেকেও উত্তম বিদ্যা শিক্ষা করবে এবং নীচ বংশের কন্যা যদি রত্ন সদৃশ হয় তবে তাকে আনবে । 

৬।প্রাজ্ঞ ব্যাক্তির কর্ম কি প্রকার ?

 প্রাজ্ঞ ব্যাক্তি পরের কল্যানে ধনসমূহ ও জীবন উৎসর্গ করেন । বিনাশ যখন নিশ্চিত তখন সৎ কাজেই ঐ দুটি জিনিস ত্যাগ করাই শ্রেয় । 

৭। পৃথিবীতে কে স্বর্গ সুখ অনুভব করবে ? 

যে ব্যাক্তির পুত্র অনুগত, যার ভৃত্য এবং স্ত্রীও অনুগত, অভাবের মধ্যেও যে ব্যক্তি সন্তুষ্টি অনুভব করেন , তিনিই এই পৃথিবীতে স্বর্গসুখ অনুভব করেন । 

৮। সৌন্দর্যের বাস কোথায় ? 

কোকিলের কন্ঠেই সৌন্দর্য । স্ত্রীলোকেদের সতীত্বেই শোভা । কুৎসিত ব্যক্তিদের বিদ্যাই হল সৌন্দর্য আর তপস্বীদের ক্ষমাগুন হলো তাদের সৌন্দর্য । 

৯। সাধু ব্যক্তির সংকল্প কি হওয়া উচিত ? 

যুগের শেষে মেরু পর্বত বিচলিত হয়, প্রলয়কালে সাত সমুদ্র উথলে ওঠে , কিন্ত সাধু ব্যক্তিরা সঙ্কল্প করলে সেই সঙ্কল্প থেকে কখন বিচ্যুত হন না । 

১০। কিসে কার শক্তি ? 

দুর্বলের শক্তি রাজা । শিশুদের শক্তি কান্না । মূর্খের শক্তি চুপ থাকা । আর চোরেদের শক্তি মিথ্যা কথা বলা 

১১। নিশ্চিত বস্তু ত্যাদের কি ফল ? 

যে ব্যক্তি নিশ্চিত বস্ত ত্যাগ করে অনিশ্চিত বস্তু লাভ করার জন্য অগ্রসর হয়, তার নিশ্চিত বস্তু তো নষ্ট হয়ই , তার সাথে অনিশ্চিত বস্তুও নষ্ট হয়েই থাকে । 

১২। ইন্দ্রিয় সংযমের কি ফল ? 

ইন্দ্রিয় সমূহ দমন না করাকে বিপদের পথ বলা হয় ,  আবার ইন্দ্রিয়কে জয় করাই হল সম্পদ অর্থাৎ উন্নতির পথ , তাই ইন্দ্রিয় দমন করাই শ্রেয়ঃ । 

১৩। কোন জিনিসের আবরন কি ? 

পৃথিবীর আবরন সমুদ্র , গৃহের আবরন প্রাচীর , দেশের আবরন রাজা, আর স্ত্রীর আবরন তার চরিত্র । 

১৪। মিষ্ট বাক্য বলার সুফল কি ? 

প্রিয় কথা বললে সকল জীবই তুষ্ট হয় । সেইহেতু তাই বলা উচিত । কথাতে কৃপণতা করে কোনো লাভ তো নেই । 

১৫। সদ্গুনের মহিমা কি ? 

ফলবান বৃক্ষ ফলের গুনে নত হয় । গুনি ব্যক্তিরা গুনভারে নত থাকেন । কিন্ত শুকনো কাঠ আর মূর্খ ব্যক্তিরা ভেঙ্গে যায় ; কিন্ত নত হয় না । 

১৬। বিদ্যা ও অর্থ কখন উপকারে আসে না ? 

বই-এর মধ্যে থাকা বিদ্যা আর পরের কাছে থাকা অর্থ প্রয়োজনের সময় কোনো কাজে আসে না । 

১৭। মূর্খের উপর কাজের দায়িত্ব দিলে কি ক্ষতি ? 

মূর্খ ব্যাক্তিকে কাজের দায়িত্ব দিলে রাজার তিনটি ক্ষতি হয় - অখ্যাতি বা অপমান , অর্থনাশ ও নরকে গমন । 

১৮। কোথায় কাকে কি দায়িত্ব দেওয়া উচিৎ ? 

অন্দরমহলে পিতৃতুল্য মানুষকে , রান্নাঘরে মায়ের মতো ব্যক্তিকে , গোসেবায় নিজের মতো লোককে এবং কৃষিকাজে নিজেরই যাওয়া উচিৎ । 

১৯। বুদ্ধিমান ব্যক্তির পদক্ষেপ কেমন হওয়া উচিৎ ? 

বুদ্ধিমান ব্যক্তি একপায়ে হাঁটেন , এক পায়ে দাঁড়ান । পরবর্তী স্থান ভালোভাবে না দেখে আগের স্থান ত্যাগ করা উচিৎ নয় । 

২০। মহাত্মা ও দুরাত্মার প্রবৃত্তি কেমন ? 

দুরাত্মার মনে এক প্রকার ভাব , কথায় এক প্রকার ভাব আবার কাজে অন্য প্রকার ভাব । কিন্ত মহাত্মাদের মনে, কথায় ও কাজে একই প্রকার ভাব থাকে । 

২১। শত্রুর সাথে আবার মিলনের পরিনাম কি ? 

যে বন্ধু একবার শত্রুতা করেছে, তার সঙ্গে যে ব্যক্তি আবার মিলিত হতে চায় , সেই ব্যক্তি নিজের হাতে সাপ নেওয়ার মতো নিজের মৃত্যুকেই গ্রহন করে থাকে । 


 Chankya Neeti in Bengali, Chankya niti in bengali, chanakya neeti bangla, চানক্য নীতি , চানক্যের নিতিসমূহ , চানক্য নিয়ম , চাণক্যের বানী 


প্রায় ২৫০০ বছর প্রাচীন, একুশটি অসাধারণ চানক্য নীতি - জেনে নিন প্রায় ২৫০০ বছর প্রাচীন, একুশটি অসাধারণ চানক্য নীতি - জেনে নিন Reviewed by WisdomApps on মার্চ ০২, ২০২১ Rating: 5

ধুলোয় অ্যালার্জি চিরতরে সেরে যাবে এই ওষুধ খেলেই

মার্চ ০১, ২০২১

অ্যালার্জি কি ? 

একজনের কাছে সমস্যাই নয় । একেবারে সাধারণ । এমন সমস্যাই যখন অন্য জনের কাছে শারীরিক অসুস্থতার কারণ হয়ে দাঁড়ায়, তাকে চিকিৎসা শাস্ত্রে অ্যালার্জি বলা হয় । 

উদাহরণ দেওয়া যাক, মোটামুটি প্রায় প্রত্যেক বাড়িতে ডিম খাওয়ার চল রয়েছে । বেশিরভাগ মানুষ অনায়াসে এই সুখাদ্য হজম করতে পারে । কোন সমস্যা হয় না। কিন্তু কিছু কিছু মানুষ আবার ডিম খেলে শারীরিক অসুস্থতার প্রকাশ করেন।  হতে পারে পেটে ব্যথা ,গায়ে চাকা চাকা দাগ, চুলকানি ইত্যাদি সবগুলোই এলার্জির লক্ষণ । এক্ষেত্রে এলার্জির কারণ হলো ডিম অর্থাৎ আপনার সাধের ডিম । কারোর কাছে হয়ে উঠল ভিলেন ! 

এলার্জি আক্রান্তদের নির্দিষ্ট কিছু দ্রব্যে হাইপার সেনসিটিভিটি বা অতি স্পর্শকাতরতা থাকে।  নির্দিষ্ট খাদ্যদ্রব্য বা জিনিস শরীরে প্রবেশ করলে বা সংস্পর্শে এলে দেহের অভ্যন্তরীণ রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থার অন্যতম উপাদান ইমিউনোগ্লোবিউলিন এর পরিমাণে তারতম্য ঘটে হলে শরীরে নানা উপসর্গ দেখা দেয় । 



 কি থেকে অ্যালার্জি হয় ? 

মোটামুটি তিন ধরনের অবস্থায় এলার্জি হয় । 

১- কোন নির্দিষ্ট খাদ্যবস্তু গ্রহণ করলে ২- শ্বাসনালীতে কিছু প্রবেশ করলে ৩- নির্দিষ্ট কিছু সংস্পর্শে এলে । 

  • ডিম ,চিংড়ি, কাকড়া, বিভিন্ন ধরনের মাংস, বেগুন সহ বিভিন্ন খাদ্যে মানুষের এলার্জি থাকতে পারে 
  • ধুলো ,ধোয়া ,পোলেন  এবং সেন্টের গন্ধ ইত্যাদি নাকে ঢুকলে বাংলক্ষ্ভিদেও অ্যালার্জি হতে পারে।
  •   কিছু ওষুধ ইনজেকশন এবং টিকা থেকেও মানুষের অ্যালার্জি হতে পারে । 
কি কি লক্ষণ হয় ?
  •  নির্দিষ্ট কিছু খাওয়ার পর পেটে ব্যথা ,গায়ে চুলকানি হলে 
  •  ধুলো ধোয়া , পোষা প্রাণী প্রাণীর লোম বা তীব্র গন্ধের সংস্পর্শে আসার পরে হাঁচি হলে জ্বর জ্বর ভাব দেখা দিলে বা শ্বাসকষ্ট হলে 
  • নির্দিষ্ট কাপড় পড়লে ,কোন প্রসাধনী বা অন্যকিছু ত্বকের সংস্পর্শে আসার পর র‍্যাশ বেরোলে ,লাল হলে, চুলকানি ,শ্বাসকষ্ট ইত্যাদি শুরু হলে  তা এলার্জির উপসর্গ । 
চিকিৎসা কি ? 
হোমিওপ্যাথিতে অ্যালার্জির দারুন চিকিৎসা রয়েছে । একেবারে গোড়া থেকে তুলে ফেলা সম্ভব। তবে চিকিৎসার প্রাথমিক পর্যায়ে অ্যালার্জি সৃষ্টিকারী জিনিশগুলো এড়িয়ে চলতে হবে । হোমিওপ্যাথিক ওষুধ নির্বাচনের সময় রোগীর সামগ্রিক স্বাস্থ্যের বিভিন্ন দিক লক্ষ্য রাখতে হবে । হোমিওপ্যাথিতে মূলত দুই ধরনের ওষুধ ব্যবহার করা হয় ।
এক, রোগীর তাৎক্ষণিক  সমস্যা নিবারক ওষুধ ,অর্থাৎ হাঁচি-কাশির হচ্ছে তা কমানোর ওষুধ । 
দুই,  কনস্টিটিউশনাল মেডিসিন । এক্ষেত্রে রোগটি নির্মূল করার ওষুধ ব্যবহার করা হয় । 

তাৎক্ষণিকভাবে এলার্জি সমস্যার কয়েকটি ওষুধ হল - 

১। হঠাৎ করে হাসি কাশি হচ্ছে র‍্যাশ বেরোল  ইত্যাদি লক্ষণে আর্সেনিক ওষুধটি দারুন কাজ করে 
২। রোদ লেগে আমবাতের মতো বেরোলে নাট্রাম মিউর  ওষুধটি ভালো কাজ দেয় 
৩। নাকে মুখে ধুলো ঢোকার পর প্রথমে সর্দি তারপর হাঁপানি শুরু হলে প্রথোস ওষুধ টি কার্যকারী ।
৪। এলার্জি থেকে নাক দিয়ে জলের মতো সর্দি গড়ালে সঙ্গে কাশি এবং জ্বর জ্বর ভাব বা জ্বর রয়েছে এইসব লক্ষণে ডালকামারা ভালো কাজ করে।
৫। এলার্জি থেকে হাঁচি হচ্ছে সঙ্গে জ্বর জ্বর ভাব গলা খুসখুস এবং নাক শুষ্ক থাকলে ব্রায়োনিয়া ওষুধটি খেলে উপকার মেলে ।
৬। খাবার খেয়ে আমবাত বা অ্যালার্জির সমস্যা হলে আরটিকা ইউরেন্স ওষুধটি কার্যকারী 

এ ছাড়াও বহু ধরনের এলার্জি সমস্যা রয়েছে সেই সকল সমস্যার জন্য একজন চিকিৎসকের পরামর্শ মতো নির্দিষ্ট ওষুধ খেতে হবে নিজে থেকে ওষুধ কিনে খেলে সমস্যা বাড়বে বৈ কমবে না তাই সমস্যা দেখা দিলে চটজলদি চিকিৎসকের পরামর্শ নিন । 


ধুলোয় অ্যালার্জি চিরতরে সেরে যাবে এই ওষুধ খেলেই ধুলোয় অ্যালার্জি চিরতরে সেরে যাবে এই ওষুধ খেলেই  Reviewed by WisdomApps on মার্চ ০১, ২০২১ Rating: 5

সাপ্তাহিক রাশিফল ০১লা মার্চ থেকে ০৬ই মার্চ ২০২১

ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১

             


এই সপ্তাহের সব রাশির রাশিফল 


মেষঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে ব্যবসাক্ষেত্রে অগ্রগতি। চাকুরিক্ষেত্রে অচলাবস্থার সাময়িক অবসান। উপস্থিত বুদ্ধি ও পরিকল্পনার দ্বারা কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব ও পদোন্নতি। সপ্তাহের মধ্যভাগে গৃহসংস্কার ও নির্মাণের পরিকল্পনা সফল হতে পারে। ঈর্ষাপরায়ণ জ্ঞাতি-পরিজনের সম্পর্কে সতর্ক থাকা প্রয়ােজন। পারিবারিক ক্ষেত্রে আলাপ-আলােচনার মাধ্যমে সমস্যার সমাধান। সপ্তাহের অন্তভাগে আধ্যাত্মিক কৃপায় শরীর-স্বাস্থ্যের উন্নতি ও মানসিক বলবৃদ্ধি।


☞ জানেন কি ? টেলিগ্রাম নয় , সন্দেশ অ্যাপ হল ভারতের নিজস্ব মেসেজিং অ্যাপ - সরকারী ভাবে , পড়ে নিন বিস্তারিত 

বৃষঃ সপ্তাহের প্রথম দিকটা এই রাশির জাতক/জাতিকার পক্ষে বেশ শুভ। বিকল্প কর্মসংস্থান ও উপার্জনের প্রচেষ্টা সফল হতে পারে। সপ্তাহের মধ্যভাগে শারীরিক সমস্যার সমাধান। দাম্পত্য মনােমালিন্যের অবসান। প্রেম-প্রণয়ে  রাগ-অনুরাগ বৃদ্ধি। সপ্তাহের অন্তভাগে কর্মসূত্রে দূরযাত্রার বিষয়ে সতর্কতা প্রয়ােজন। আয়-উপার্জন বৃদ্ধির যােগ সুস্পষ্ট। গুপ্ত শত্রু সম্পর্কে সজাগ থাকা প্রয়ােজন। বিষয়-সম্পত্তিজনিত বিষয়ে জ্ঞাতি-বিরােধ ও মনােমালিন্য বৃদ্ধি। 

☞ ঘরোয়া কিছু পদ্ধতি ব্যবহার করেই আটকানো যায় চুলপড়া , খুশকি ও পাকা চুল । জেনে নিন 

 মিথুনঃ আলােচ্য সপ্তাহের প্রথমভাগে প্রিয়জনের শরীর-স্বাস্থ্যের উন্নতিতে মানসিক ভার লাঘব। সন্তানের বিদ্যা শিক্ষায় ক্রমিক অবনতিতে হতাশা বৃদ্ধি। সপ্তাহের মধ্যভাগে উচ্চতর বিদ্যার্জন ও গবেষণায় কৃতিত্ব/সাফল্য। স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের উন্নতি। প্রেম-প্রণয়ে  মনােমালিন্যের অবসান। সপ্তাহের  অন্তভাগে কায়িক শ্রম ও ক্লান্তি বৃদ্ধি। ব্যবসাক্ষেত্রে প্রত্যাশিত অগ্রগতি না হওয়ায় হতাশাবৃদ্ধি। কর্মক্ষেত্রে অস্থিরতা বজায় থাকায় হতাশা বৃদ্ধি। স্বনিযুক্তি পেশায় যুক্ত ব্যক্তিবর্গের বিকল্প কর্মানুসন্ধানে আশার আলাে।

☞ লোকনাথ বাবার কিছু বানী আপনার জীবনে আশার আলো আনতে পারে । একটু সময় দিয়ে পড়ে নিন । 

কর্কটঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে দাম্পত্য সমস্যায় ভুল বােঝাবুঝিকে আর বাড়তে না দেওয়াই শ্রেয়। আলাপ আলােচনার মাধ্যমে উক্ত সমস্যার সমাধানে। উদ্যোগী হওয়া প্রয়ােজন। সপ্তাহের মধ্যভাগে প্রেম-পরিণয়ে সাফল্য। কর্মক্ষেত্রে অস্থিরতা বজায় থাকলেও বিকল্প কর্মানুসন্ধানে সাফল্য। সপ্তাহের অন্তভাগে প্রিয়জনের শরীর-স্বাস্থ্যের উন্নতি। শেয়ার,ফাটকা লটারিতে অত্যধিক লগ্নি না করাই শ্রেয়। সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় উন্নতি। বিবাহযােগ্য সন্তানের বিবাহ বিষয়ক উদ্যোগ ও পরিকল্পনা সফল হতে পারে। গৃহসংস্কার/নির্মাণের হতাশা বৃদ্ধি।

কোলকাতার কাছাকাছি ৯ টি অসাধারন পিকনিক স্পটের সন্ধান জেনে নিন 

সিংহঃ  সপ্তাহের প্রথমভাগে উচ্চতর বিদ্যার্জন ও বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণে সাফল্য। কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব ও পদ বৃদ্ধি। ব্যবসাক্ষেত্রে আয়-উপার্জন সন্তোষজনক নাও হতে পারে। সপ্তাহের মধ্যভাগে পারিবারিক মতবিরােধ আলাপ আলােচনার মাধ্যমে মিটিয়ে নেওয়া প্রয়ােজন। গৃহ সমস্যা/ বাস্তুসমস্যায় যথাবিহিত সমাধানে উদ্যোগী হওয়া আবশ্যক। সপ্তাহের অন্তভাগে ঈশ্বরের কৃপায় শরীর-স্বাস্থ্যের উন্নতি ও উদ্বেগ, উৎকণ্ঠার অবসান। প্রেম-পরিণয়ে হতাশা ও নৈরাশ্য।

☞ বাজারে এসেছে ভেসপা কোম্পানীর ইলেক্ট্রিক স্কুটার , ১ বার চার্জ দিলে চলবে ১০০ কিমি দেখে নিন

কন্যাঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে কর্মক্ষেত্রে উপস্থিত বুদ্ধি ও পরিকল্পনায় সাফল্য। স্বনিযুক্তি প্রকল্পে যুক্ত ব্যক্তিবর্গদের পক্ষে সপ্তাহটা বেশ আশাপ্রদ। সপ্তাহের মধ্যভাগে দাঁতের যন্ত্রণা, অ্যাসিডিটি বাতজবেদনায় কাবু হতে পারেন। প্রয়ােজনীয় চিকিৎসা ও আগাম সতর্কতায় উক্ত শারীরিক সমস্যায় আরােগ্য। সপ্তাহের অন্তভাগে উচ্চতর বিদ্যার্জন গবেষণামূলক কার্যে সফলতা, স্বীকৃতি। পারিবারিক সমস্যায় মতবিরােধ মনােমালিন্য বৃদ্ধি। লটারিতে অর্থক্ষতির সম্ভাবনা প্রবল।



তুলাঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে প্রেমজ ক্ষেত্রে মাত্রাতিরিক্ত আবেগ, অনুরাগ বর্জনীয়। পারিবারিক ও দাম্পত্য জীবনে ভুল বােঝাবুঝির অবসান। সপ্তাহের মধ্যভাগে বিকল্প কর্মানুসন্ধানে সাফল্য। আয়-উপার্জন বৃদ্ধির সঙ্গে সঙ্গে ব্যয়ভারও রয়েছে। ন্যূনতম সঞ্চয়ে উদ্যোগী হওয়া প্রয়ােজন। সপ্তাহের অন্তভাগে শরীরস্বাস্থ্যের উন্নতি। যােগ, প্রাণায়ামে মনোেবল বৃদ্ধি। সন্তানের বিবাহ-পরিকল্পনায় উদ্যোগী হওয়া প্রয়ােজন। বাস্তু ও গৃহসংস্কারে জ্ঞাতি-পরিজনের সঙ্গে মতবিরােধ ও মনােমালিন্য বৃদ্ধি। ঋণ আদায়কারি সংস্থা/ ব্যক্তির আচরণে সামাজিক সম্মানহানি।

☞ জানেন কি দাঁতের পোকা বলে কিছু হয়না ? আর দাঁত ভালো রাখার সিক্রেট জেনে নিন 

বৃশ্চিকঃ সপ্তাহের প্রথম ভাগটা এই রাশির জাতক জাতিকাদের পক্ষে বেশ আশাপ্রদ । বিকল্প কাজের খোঁজে সাফল্য । শিল্পী , কলাকুশলী , ব্যক্তিদের পক্ষে সপ্তাহের মধ্যভাগটা অপেক্ষাকৃত শুভ । ব্যবসাক্ষেত্রে অত্যাধিক ঋণ বৃদ্ধিতে রাশ টানা প্রয়োজন । পারিবারিক সমস্যায় ভুল বোঝাবুঝির অবসান । সপ্তাহের অন্তভাগে অগ্নি, বিদ্যুৎ , কীট-পতঙ্গ দংশন , জীবানু সংক্রামণ বিষয়ে সতর্কতা আবশ্যক । প্রেম পরিনয়ে সম্পর্কের উন্নতিতে মানসিক ভার লাঘব । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় ক্রমিক অবনতিতে হতাশা বৃদ্ধি । 

ধনুঃ আলােচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকটা বিষয় বেশ শুভ। তবে পারিবারিক জ্ঞাতিবিরােধের সম্ভাবনাও থাকছে। উক্ত বিষয়ে সতর্ক থেকে তবেই গৃহসংস্কারে উদ্যোগী হওয়া সমীচীন। সপ্তাহের মধ্যভাগে শারীরিক সমস্যায় যথাবিহিত চিকিৎসায় সাফল্য। যােগ, প্রাণায়ামে মানসিক প্রফুল্ল। সপ্তাহের অন্তভাগে বিবাহযােগ্য সন্তানের বিবাহ-পরিকল্পনায় উদ্যোগ। উচ্চতর বিদ্যার্জন ও গবেষণামূলক কার্যে সাফল্য। প্রেম-পরিণয়ে উদ্বেগ ও উৎকণ্ঠা বৃদ্ধি। 


মকরঃ এই সপ্তাহের গোড়ার দিকেই যাবতীয় শুভ কাজ সম্পাদনে উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন । বিশেষ গৃহ সংস্কার , নির্মাণ ও বাস্তু সমস্যার যথাবিহিত উদ্যোগ গ্রহন করা আবশ্যক । সপ্তাহের মধ্যভাগে স্বামী-স্ত্রীর সম্পর্কের উন্নতি । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় সাফল্য । প্রেম - পরিনয়ে অহেতুক বাদানুবাদ । সপ্তাহের অন্তভাগে কর্ম পরিবর্তন সম্ভাবনা বেশ উজ্জ্বল । স্বামী-স্ত্রীর যৌথ প্রচেষ্টায় পারিবারিক সমস্যার সমাধান । শেয়ার, ফাটকা, লটারিতে অর্থ ক্ষতির সম্ভাবনা প্রবল । 

কুম্ভঃ আলােচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকে গুরুজনের শরীর স্বাস্থ্যের অগ্রগতিতে মানসিক ভার লাঘব। যােগ, প্রাণায়াম ও ধর্মালােচনায় মানসিক উৎকণ্ঠা ও উদ্বেগ মুক্তি। সপ্তাহের মধ্যভাগে কর্মক্ষেত্রে সংস্থাগত পরিবর্তনের সম্ভাবনা বেশ উজ্জ্বল। শিল্পী, কলাকুশলী ব্যক্তিদের পক্ষে সপ্তাহের অন্তভাগটা অপেক্ষাকৃত শুভ। প্রেম-পরিণয়ে নৈরাশ্যের অবসান। দাম্পত্য সমস্যায় তৃতীয় পক্ষের প্রভাব বরদাস্ত করবেন না। নিজেদের সমস্যা নিজেরাই মেটান।

☞ বাজার থেকে পচা টম্যাটোর সস কিনে খাওয়ার থেকে বাড়িতে সস বানানোর এই পদ্ধতি জেনে নিন 

মীনঃ  সপ্তাহের প্রথম দিকে আধ্যাত্মিক কৃপায় শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতি। প্রবাসী প্রিয়জন/আত্মীয়ের সম্পর্কে দুশ্চিন্তা থাকলেও তা অধিকাংশই অমূলক। সপ্তাহের মধ্যভাগে উপস্থিত বুদ্ধি ও যুক্তিতে বলবান প্রতপক্ষের মোকাবিলায় সাফল্য । সপ্তাহের শেষভাগে বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষনে সফলতা প্রাপ্তি । অর্থনৈতিক ক্ষেত্রে আয়-ব্যায়ের সমতা বিধান জরুরী। অত্যাধিক ঋণে লাগাম দেওয়া প্রয়োজন । প্রেম পরিনয়ে সাফল্য । দাম্পত্য জীবনে ভুল বোঝাবুঝির অবসান । 

সাপ্তাহিক রাশিফল ০১লা মার্চ থেকে ০৬ই মার্চ ২০২১ সাপ্তাহিক রাশিফল ০১লা মার্চ  থেকে ০৬ই মার্চ ২০২১ Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ২৮, ২০২১ Rating: 5

চুলপড়া , পাকা চুল ও খুশকি ঠিক করা ঘরোয়া উপায় - জেনে নিন

ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২১

 কয়েকটি ঘরােয়া পরিচর্যার মাধ্যমে চুল ভালো রাখুন 

খাঁটি নারকেল তেল স্নানের আধ ঘন্টা পূর্বে মাখুন। ভালােভাবে ম্যাসাজ করুন। রোদ্দুর থাকলে দু' পাঁচ মিনিট মাথায় লাগিয়ে নিন, তবে চড়া রােদে নয়। তারপর হালকা গরম জলে স্নান করুন, পারলে সারা বছর। তেল মাখার আধ ঘণ্টা পরেই স্নান করুন। সপ্তাহে ২ দিন শ্যাম্পু ব্যবহার করবেন, অবশ্যই তেল মাখার পর। নারকেল তেল চুলের বৃদ্ধি ঘটায়, চুল সুন্দর ও ঘন হয় , সহজে  খুশকি আসে না। এছাড়া মাথা ঠান্ডা রাখে, মাথার চামড়া ভালাে থাকে। তবে প্রয়ােজন হলে ঘরোয়া শ্যাম্পু ও খুশকি নাশক বিধান মেনে চলতে পারেন। তেল, সাবান ও শ্যাম্পু ঘনঘন বদলাবেন না। নারকেল তেল যেমন চুলের উজ্জ্বলতা বৃদ্ধি করে, তেমনি চুলকে দূষণ থেকে রক্ষা করতে পারে।



• যাঁদের নারকেল তেল সহ্য হয় না, তারা খর্টি সরষের তেল ব্যবহার করুন। খাঁটি কথাটা সরষের তেলের ক্ষেত্রে বলাটা খুবই মুশকিল। যে কোনও পরিচিত একটা ব্রান্ডের তেল ব্যবহার করতে পারেন। এছাড়া ১০ গ্রাম সরষের তেলের সঙ্গে ১০ গ্রাম নিম তেল ভালােভাবে মিশিয়ে সেটিও ব্যবহার করা যায়। ব্যবহারিক নিয়ম পূর্বের মতে। এর দ্বারা চুলের গোড়া শক্ত হয়, সহজে খুশকি আসে না ও চুল পাকে না, খুশকি থেকে উৎপন্ন কোনও চুলকানি বা অ্যালার্জি হয় না। শীতে চুলপড়া ও খুশকি হাত ধরাধরি করে আসে। প্রত্যহ স্নানের পূর্বে পূর্বোক্ত নিয়মে তেল দিয়ে ম্যাসাজ করুন। নারকেল তেল বা সরষের তেল সর্বাঙ্গে মাখতে পারলে ত্বক ভালাে থাকবে।

• গ্রামের ছোট ছোট ছেলেমেয়েদের জন্য একটা বহুপরীক্ষিত মুষ্টিযোগের উল্লেখ করা যাক । ১০-১২ বছর বয়স পর্যন্ত সপ্তাহে ২ দিন শ্যাম্পু হিসাবে এটি ব্যবহার করতে পারেন । ৪-৫ টি ঢ্যড়শ পাতা ও ৮-১০টি লাল জবা ফুলের পাতা ভালোকরে ধুয়ে নিয়ে , কুচি কুচি করে কেটে জলের মধ্যে চটকাবেন । এরপর পাতাগুলো তুলে ভালো করে নিংড়ে নিয়ে ফেলে দেবেন । এই লালার মত মিশ্রিত ফ্যানা দিয়ে মাথা ঘষতে হবে শ্যাম্পুর মতো করে । কিছুক্ষন রাখার পর মাথা ধুয়ে ফেলবেন । ইচ্ছা হলে বড়রাও এটা ব্যবহার করতে পারেন । এতে চুলের গোড়া শক্ত হয় , চুল ঘন হয় , খুশকি হবে না, সহজে চুল পাকবে না, আর চুল খুব ফুরফুরে থাকবে । এটা ব্যবহার করার আগে নারকেল তেল বা নিমতেল মিশ্রিত সরষের তেল ব্যবহারতে পারেন। ব্যবহার করলে উপকার বেশি। আবার যে দু'দিন শ্যাম্পু করবেন, সে দুদিন পূর্বে তেল না মাখলে বিকেলের দিকে শুকনাে চুলে অল্প তেল ম্যাসাজ করে ভালােভাবে চিরুনি দেবেন। তাহলে পরদিন গানের পুর্বে তেল মাখার প্রয়ােজন হবে না। ভালো চিরুনি দিয়ে মাঝে মাঝে এবং তেল ব্যবহার করার পর চুল আঁচড়ানােটা চুলের পরিচর্যার প্রাথমিক ধাপ।


খুশকি তাড়াতে হলে কি করবেন ? 

এক কাপ জলে একটা পাতিলেবু নিংড়ে সেই জলটি দিয়ে স্নানের পূর্বে মাথায় ঘষে ঘষে লাগান। পাৱলে মাথায় মেখে ১০-১৫ মিনিট হালকা রােদ লাগান। লেবুর সাইট্রিক অ্যাসিড খুশকিকে প্রতিহত করে। ১০-১৫ মিনিট পরে মাথাটি ধুয়ে ফেলুন বা স্নান করুন। হাল রোদ লাগালে চুলের ঔজ্জ্বল্য বাড়বে এবং চুলে একটা আলাদা রঙের সৃষ্টি হবে। ওই দিন বিকেলের দিকে কোন তেল মাথায় দিতে পারেন অথবা নাও দিতে পারেন। সপ্তাহে একদিন অথবা খুব প্রয়োজন হলে ব্যবহার করবেন। তবে লেবুর বসে অ্যালার্জি থাকলে এটি আর ব্যবহার করবেন না।

• আর একটি খুশকি নিবারক একক দ্রব্যের কথা বলি। সেটি হল কচি ডাবের নরম মালা বেটে রস বের করতে হবে। শিকাকাই ও আমলকী (সমান পরিমাণে প্রয়ােজনমতো ওজন করে নিতে হবে) রাতে ভিজিয়ে সকালে চটকে সেই জল দিয়ে মাথা ধোওয়ার পর চুল ভালাে করে শুকিয়ে গেলে বিকেলের দিকে চুল চিরে চিরে নারকেল মালার রসটি লাগান। হঠাৎ ধােওয়ার কোনও দরকার নেই। পরদিন তেল না মেখে স্নান করুন। এরপর যেভাবে শ্যাম্পু ও তেল ব্যবহার করেন তাই করবেন । 


বাড়িতে এই তেল তৈরি করে চুলে লাগানঃ 

  • শশা, পুদিনা পাতা ও গাজর সম পরিমাণে (আন্দাজমতো) নিয়ে থেতো করে রস বের করতে হবে।  এটি স্নানের পর মাথায় হালকা মাসাজ করে লাগিয়ে ১০-১৫মিনিট পর ধুয়ে ফেলবেন ।
  •  যারা নারকেল তেল বা সরষের তেল ব্যবহার কখতে চান না , তারা একটা তেল বাড়িতে তৈরি করে সপ্তাহে ৬ দিন ব্যবহার কত পারেন। সপ্তাহের বাকি একটা দিন স্নানের ঘন্টাখানেক পূর্বে রসুনের রস লাগিয়ে স্নান করে নিন। তেল তৈরির নিয়ম- তিল তেল ১২৫ গ্রাম, ভৃঙ্গরাজ পাতা ও ডাঁটার রস ২০০ গ্রাম ও কুঁচ ফল (সাদা হলে ভালো, না পেলে লাল ) ১৫ গ্রাম বাটা একসঙ্গে মিশিয়ে হায়কা আঁচে ফোটাতে  হবে। ফুটতে ফুটতে যখন রস মরে যাবে, শুধু তেলটি থাকবে, তখন নামিয়ে ঠান্ডা হলে ছেঁকে শিশিতে রাখুন। এটি ব্যবহারে চুল বাড়বে, হঠাৎ পাকবে না। যাদের চুল পাকতে শুরু করেছে, সেটা ধীরে ধীরে বন্ধ হয়ে যাবে। নিজে না পারলে কোনও আয়ুর্বেদ চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে বানিয়ে নিতে পারেন।
  •  এছাড়া আরও একটা তেল তৈরি করে মাখতে পারেন। সেটি এভাবে তৈরি করবেন- ২৫০ গ্রাম অমলকী ২ লিটার জলে সিদ্ধ করে , আধ লিটার থাকতে নামিয়ে ছেঁকে সেই জলটি ১৫০ গ্রাম নারকেল তেল মিশিকে হালক আঁচে ফুটিয়ে জলটি শুকিয়ে গেলে যখন কেবল তেলটি অবশিষ্ট থাকবে, তখন নামিয়ে ঠান্ডা হলে ছেলে একটি শিশিতে রাখুন। এটি প্রত্যহ স্নানের আধ ঘন্টা পূর্বে মাথায় মাখবেনা । যেদিন সাবান বা শ্যাম্পু মাথায় নেবেন, সেদিন তেলটি মাখবেন। সুবিধেমতে তেল দুটির যে কোনও একটি তৈরি করে ব্যবহার করতে পারেন । মনে রাখবেন পাকা চুলকে সমস্যা বলে নিজে থেকে না বলে কোনও সমস্যা নেই। 

চুলপড়া , পাকা চুল ও খুশকি ঠিক করা ঘরোয়া উপায় - জেনে নিন চুলপড়া , পাকা চুল ও খুশকি ঠিক করা ঘরোয়া উপায় - জেনে নিন Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ২৭, ২০২১ Rating: 5

ত্রিপিটকঃ মানুষের অবশ্য পালনীয় ৯টি কর্তব্য সম্বন্ধে জেনে নিন

ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০২১

 ত্রিপিটকঃ ত্রিপিটক বৌদ্ধ ধর্মীয় পালি গ্রন্থের নাম। বুদ্বের দর্শন এবং উপদেশের সংকলন। পালি তি-পিটক হতে বাংলায় ত্রিপিটক শব্দের প্রচলন। পিটক শব্দটি পালি এর অর্থ - ঝুড়ি, পাত্র, বাক্স ইত্যাদি, অর্থ যেখানে কোনো কিছু সংরক্ষন করা হয়। তিন পিটকের সমন্বিত সমাহারকে ত্রিপিটক বোঝানো হচ্ছে। এই তিনটি পিটক হলো বিনয় পিটক, সূত্র পিটক ও অভিধর্ম পিটক। এটি বৌদ্ধদের মূল ধর্মীয় গ্রন্থ। এই গ্রন্থের গ্রন্থনের কাজ শুরু হয়েছিল গৌতম বুদ্ধ এর পরিনির্বানের তিন মাস পর অর্থাৎ খ্রিষ্ট পূর্ব ৫৪৩ অব্ধে এবং সমাপ্তি ঘটে খ্রিষ্ট পূর্ব প্রায় ২৩৬ অব্ধে। এখানে ত্রিপিটক থেকে খুবই গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি বানী দেওয়া হলো - 



• জন্মের দ্বারা কেউ নীচ জাতি বা ব্রাহ্মণও হয় না, কেবল কাজের দ্বারাই মানুষ নীচ বা ব্রাহ্মণ হয়ে থাকে।

• ঘৃণা দ্বারা কখনো ঘৃণা পরাস্ত হয় না । কিন্ত প্রেম ও ভালোবাসা দ্বারা ঘৃণা পরাস্ত হয়ে যায় । 

• সত্য কথা বল, ক্ষমা কর ও প্রার্থীব্যক্তিকে দান কর। যদি তােমার অল্প থাকে তবে তার সামান্য অংশ দিতেও কুণ্ঠিত হয়াে না। এই তিন কাজের দ্বারা মানুষ দেবতা হতে পারে।

• যা করা উচিত তা করেনি,  যা করা অনুচিত তা করেছে, যারা অহঙ্কারী ও অলস- এমন মানুষের দুঃখ দিন দিন বৃদ্ধি পায়।

• ক্রোধ, নেশা, জেদ, ধর্মের প্রতি অসার অনুরাগ, ঈর্ষা, আত্মপ্রশংসা, নিন্দা, নিজেকে নিয়ে অহঙ্কার ও অপবিত্র সম্বন্ধ—এই সকল কাজ অপবিত্রতা ও পাপ উৎপন্ন করে।

• মনকে নিজের আয়ত্তে রাখাই সর্বশ্রেষ্ঠ কাজ। মনকে বশে রাখা বড় কঠিন, কারণ মন বড় চঞ্চল, কখন সে কোন বিষয় নিয়ে কোথায় ছুটে যাবে তা কেউ বলতে পারে না। তাই মনকে সংযত করাই সুখী হওয়ার পথ। মন সংযত করতে পারলে সব কাজেই জয়ী হওয়া যায়।

• কষ্টসহিষ্ণু ও বিনয়ী নম্র হওয়া, সাধুসঙ্গ ও সৎপ্রসঙ্গ আলােচনা করা যথার্থ সুখ।

• প্রত্যেক বিষয়ে যারা পর্বতের ন্যায় অটল ও প্রত্যেক বিষয়ে যারা নিরাপদ, তারাই প্রকৃত সাধু।

• যাহাদিগের হৃদয়ে পাপ , মুখে মধুর বাক্য , তাহারা অমৃত পরিষিক্ত বিষকুম্ভ । দুঃ স্পর্শ শৈলশিলা সদৃশ কঠিনাত্মা তাদৃশ লোক সকলের চির অদর্শনই সমুচিত । 


ত্রিপিটকঃ মানুষের অবশ্য পালনীয় ৯টি কর্তব্য সম্বন্ধে জেনে নিন ত্রিপিটকঃ মানুষের অবশ্য পালনীয় ৯টি কর্তব্য সম্বন্ধে জেনে নিন Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ২৪, ২০২১ Rating: 5

রাশিফল বাংলা ২১শে ফেব্রুয়ারী থেকে ২৮ শে ফেব্রুয়ারি

ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২১

            


এই সপ্তাহের সব রাশির রাশিফল 


মেষঃ এই সপ্তাহের প্রথম দিকে কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব বৃদ্ধি যোগ রয়েছে । তবে ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে সপ্তাহের মধ্য ভাগে লাভের সম্ভাবনা বেশি । প্রিয়জনের শরীর স্বাস্থ্য বিষয়ে দুশ্চিন্তার কিছু কারন নেই । ঈশ্বরের কৃপায় শীঘ্রই নিজের বা প্রিয়জনের শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতির যোগ পরিষ্কার । সপ্তাহের শেষের দিকে দাম্পত্য জীবনে মতানৈক্য এড়িয়ে চলা প্রয়োজন ।  নতুবা বিতর্কবিবাদ বৃদ্ধি পাবে । প্রেম পরিণয়ে যাবতীয় মনোমালিন্যের সম্পত্তিতে মানসিক ভার লাঘব ।  বিবাহযোগ্য সন্তানের বিবাহ সংক্রান্ত বিষয়ে আরো উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন

☞ জানেন কি ? টেলিগ্রাম নয় , সন্দেশ অ্যাপ হল ভারতের নিজস্ব মেসেজিং অ্যাপ - সরকারী ভাবে , পড়ে নিন বিস্তারিত 

বৃষঃ সপ্তাহের মধ্যভাগে আয় উপার্জন বৃদ্ধির যোগ রয়েছে । তবে ব্যবসাক্ষেত্রে বুঝেশুনে লগ্নি করা প্রয়োজন । ঋণ বৃদ্ধির যোগ থাকছে । সপ্তাহের মধ্যভাগে যোগ প্রাণায়াম ও উপযুক্ত চিকিৎসায় শরীর-স্বাস্থ্যের অভূতপূর্ব উন্নতি।  কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব ও দাপট বৃদ্ধি পাবে । সপ্তাহের শেষ ভাগে মনের শক্তির দৃঢ়তায় শত্রুভয় থেকে মুক্তি।  দাম্পত্য জীবনে ভুল বোঝাবুঝির অবসান । পারিবারিক ক্ষেত্রে সিদ্ধান্তের দৃঢ়তায়  প্রতিপক্ষের যাবতীয় অপচেষ্টা ব্যর্থ হবে।  সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় মনোযোগ বৃদ্ধিতে মানসিক উদ্বেগের অবসান। 

 মিথুনঃ   সপ্তাহের গোড়ার দিকে বেশ কিছু অর্থ প্রাপ্তির যোগ দেখা যাচ্ছে । ব্যবসায়ীদের ক্ষেত্রে আর বেশি ঋণ না করাই ভালো। পাওনাদারের তাগাদায় বিব্রত হওয়ার সম্ভাবনা থাকছে। সপ্তাহের মধ্যভাগে প্রেম পরিণয়ে অযথা আবেগতাড়িত না হওয়া শ্রেয় ।  নতুবা মানসিক ব্যবধান আরো বৃদ্ধি পাবে । উচ্চশিক্ষা ও বিদ্যার্জনে সফলতা । কর্মসূত্রে দুর  যাত্রা , বদলির যোগ দেখা যাচ্ছে । সপ্তাহের অন্তভাগে উপযুক্ত চিকিৎসা ও মানসিক দৃঢ়তায় রোগ মুক্তি পাবে । গৃহ সংস্কার বা গৃহ নির্মাণের উদ্যোগ আর কিছুদিন পরে নেয়ায়ই সমীচীন।

☞ লোকনাথ বাবার কিছু বানী আপনার জীবনে আশার আলো আনতে পারে । একটু সময় দিয়ে পড়ে নিন । 

কর্কটঃ   সপ্তাহের প্রথম দিকে উচ্চতর বিদ্যার্জন ও গবেষণামূলক কাজে সাফল্য । সপ্তাহে মধ্যভাগে আয় ব্যয়ের সমতা বিধান করে চলা জরুরী । সঞ্চয়ের দিকে কিছুটা হলেও মনোনিবেশ করা প্রয়োজন । শিল্পী কলাকুশলী স্বনিযুক্তি প্রকল্পে যুক্ত ব্যক্তিবর্গের পক্ষে সপ্তাহের শেষ ভাগটা বেশ আশা প্রদ ।  সমাজসেবামূলক কাজে শ্রম ও অর্থ দানে সমাজে প্রভাব প্রতিপত্তি বৃদ্ধি । বলবান শত্রুর যাবতীয় দুরভিসন্ধি বানচাল । দাম্পত্য জীবনে মনোমালিন্যের অবসান। পারিবারিক শান্তি পুনরুদ্ধার ।


কোলকাতার কাছাকাছি ৯ টি অসাধারন পিকনিক স্পটের সন্ধান জেনে নিন 

সিংহঃ  আলোচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকে বিবাহযোগ্য সন্তানের বিবাহ বিষয়ে আশাব্যঞ্জক সূচনা হতে পারে । কর্মক্ষেত্রে পদ বৃদ্ধি পেলেও আয়-উন্নতি সেই অর্থে বৃদ্ধি নাও পেতে পারে । সপ্তাহের মধ্যভাগে গৃহ সংস্কার ও নির্মাণ বিষয় পারিবারিক মনোমালিন্য বৃদ্ধি । দাম্পত্য জীবনে শ্বশুরবাড়ির লোকজনের বাড়বাড়ন্তের জন্য বিতর্কবিবাদ বৃদ্ধি পাওয়ার সম্ভাবনা প্রবল।  সপ্তাহের অন্তভাগে ব্যবসাক্ষেত্রে আয় উন্নতি বৃদ্ধি ।  বিকল্প কর্মসন্ধান বা জীবিকায় আশাতীত সাফল্য । 

☞ বাজারে এসেছে ভেসপা কোম্পানীর ইলেক্ট্রিক স্কুটার , ১ বার চার্জ দিলে চলবে ১০০ কিমি দেখে নিন

কন্যাঃ এই সপ্তাহের প্রথম দিকে পারিবারিক মতবিরোধের সম্ভাবনা থাকছে । তাই অযথা বিতর্ক বিবাদ এড়িয়ে চলা প্রয়োজন । সপ্তাহের মধ্যভাগে  উচ্চতর বিদ্যার্জন, গবেষণামূলক কাজে সাফল্য । মনের জোরে পারিবারিক মতবিরোধের বাধাকে অতিক্রম করতে পারবেন । সপ্তাহের শেষ ভাগে আয় উপার্জন বৃদ্ধি।  ব্যবসা ক্ষেত্রে সফলতা ।  দাম্পত্য বিরোধের নিস্পত্তির সম্ভাবনা । ঐশ্বরিক কৃপায় শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতি । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় সাফল্য । 



তুলাঃ এই সপ্তাহের গোড়ার দিকে কাজকর্ম নতুন আশা-আকাঙ্ক্ষা উদ্যমের পরিচয় রাখতে পারবেন । ব্যবসা ক্ষেত্রে সফলতার যোগ রয়েছে । সপ্তাহের মধ্যভাগে শেয়ার, ফাটকা, লটারিতে আকস্মিকভাবেই বেশ কিছুটা অর্থ হাতে আসতে পারে।  বিবাহযোগ্য সন্তানের বিবাহ বিষয়ে আরো একটু উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন । সপ্তাহের শেষভাগে শিল্পী , কলাকুশলী ,  স্বনিযুক্তি প্রকল্পে যুক্ত ব্যক্তিবর্গের বেশ আশাপ্রদ ।  দূরবর্তী স্থানে কর্মরত প্রিয়জনের শরীর-স্বাস্থ্য ঠিক থাকবে অত্যাধিক দুশ্চিন্তা না করা সমীচীন । 

☞ জানেন কি দাঁতের পোকা বলে কিছু হয়না ? আর দাঁত ভালো রাখার সিক্রেট জেনে নিন 

বৃশ্চিকঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে পারিবারিক সমস্যার নিষ্পত্তি হয়ে যেতে পারে।  ব্যবসাক্ষেত্রে পুরনো লগ্নির সুফল ধীরে ধীরে পেতে থাকবেন । সপ্তাহের মধ্যভাগে প্রেম পরিণয়ে মতবিরোধের সম্ভাবনা প্রবল । অপ্রত্যাশিতভাবে মাতৃকুল থেকে কিছু অর্থ হাতে আসতে পারে । সপ্তাহের অন্তভাগে ঈর্ষাকাতর পরিবার পরিজনের আচরণে মানসিক ক্লেশ বৃদ্ধি । মনের জোরে পারিবারিক সমস্যার সমাধান । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় ক্রমিক অবনতিতে হতাশা বৃদ্ধি পাবে।  আধ্যাত্নিক কৃপায় শরীর-স্বাস্থ্যের অভূতপূর্ব অগ্রগতিতে মানসিক প্রফুল্লতা বৃদ্ধি ।

ধনুঃ  সপ্তাহের আদ্যভাগে ব্যবসা ক্ষেত্রে বিকল্প জীবিকায় লাভের যোগ রয়েছে । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় সাফল্যে মানসিক প্রফুল্লতা বৃদ্ধি । সপ্তাহের মধ্যভাগে  সেবামূলক কার্যক্রম অর্থ ও শ্রম দানের ফলে সামাজিক সম্মান বৃদ্ধি । চাকরিজীবীদের ক্ষেত্রে সময়টা কিছুটা অস্থির ।  মতানৈক্য এড়িয়ে বুঝেশুনে সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত । সপ্তাহের অন্তভাগে শেয়ার ফাটকায় অত্যাধিক লগ্নি না করাই ভালো । বাস্তু সংক্রান্তঃ সমস্যায় নাজেহাল হলেও এখনই গৃহ পরিবর্তনের সিদ্ধান্ত নেওয়া উচিত হবে না বরং বাস্তু সংস্কারের মাধ্যমে পুরনো গৃহেই বসবাস করা শ্রেয় । 


মকরঃ সপ্তাহের প্রথম দিকে ব্যবসাক্ষেত্রে আয় উপার্জন বৃদ্ধি পাবে।  তবে আয় ব্যয়ের মধ্যে এবার সমতা বিধান জরুরী।  কিছুটা সঞ্চয়ের দিকে মনোনিবেশ করা প্রয়োজন । সপ্তাহের মধ্যভাগে প্রবাসী প্রিয়জনের সম্পর্কে দুশ্চিন্তা বৃদ্ধি পাবে ।  নিজের শরীর স্বাস্থ্যের প্রতি আরো যত্নবান হওয়া প্রয়োজন । সপ্তাহের অন্তভাগে পৈত্রিক সম্পত্তি নিয়ে জ্ঞাতি পরিজনের সঙ্গে মতবিরোধ । গবেষণামূলক কাজে বিদেশযাত্রা / দূরযাত্রার পরিকল্পনা এখন স্থগিত রাখা শ্রেয়। 

কুম্ভঃ সপ্তাহের প্রথম ভাগে এই রাশির জাতক-জাতিকারা শুভসংবাদ লাভ করবেন । কর্মক্ষেত্রে অস্থিরতা বজায় থাকায় কর্ম পরিবর্তন বা বিকল্প কর্ম অনুসন্ধানে উদ্যোগী হওয়ার আবশ্যকতা দেখা যাচ্ছে । সপ্তাহের মধ্যে ভাগে শরীর-স্বাস্থ্যের কিছুটা অবনতি হলেও অত্যধিক দুশ্চিন্তার কোনো কারণ নেই । সপ্তাহের অন্তভাগে দাম্পত্য সমস্যা । বিতর্কিত বিষয় এড়িয়ে চলাই শ্রেয় । প্রেম পরিণয়ে আবেগ বর্জন করে চলাই সমীচীন । 

☞ বাজার থেকে পচা টম্যাটোর সস কিনে খাওয়ার থেকে বাড়িতে সস বানানোর এই পদ্ধতি জেনে নিন 

মীনঃ  সপ্তাহের প্রথম দিকে একাধিক উপায়ে অর্থ উপার্জনের প্রচেষ্টা সফল হতে পারে।  বলবান শত্রুর সঙ্গে আপোষ মীমাংসা করে দেওয়াই শ্রেয়।  সপ্তাহের মধ্যভাগে কর্মক্ষেত্রে প্রতিভার পরিচয় রাখতে পারবেন । উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের সুনজরে থাকায় সহকর্মীদের বিদ্বেষমূলক মনোভাবের শিকার হতে পারেন।  সপ্তাহের অন্তভাগে প্রিয়জনের শরীর-স্বাস্থ্যের অগ্রগতিতে মানসিক ভার লাঘব ।  সন্তানের বিদ্যা শিক্ষার অগ্রগতি ।  


রাশিফল বাংলা ২১শে ফেব্রুয়ারী থেকে ২৮ শে ফেব্রুয়ারি রাশিফল বাংলা ২১শে ফেব্রুয়ারী থেকে ২৮ শে  ফেব্রুয়ারি Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ২১, ২০২১ Rating: 5

বাজারে এলো Bluetooth Ear Buds ও আলট্রা ভায়োলেট প্রোটেকশন যুক্ত হাই টেক মাস্ক - উন্নত টেকনোলজি , উন্নত মাস্কের দাম **৫০ /- টাকা ?

ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১


১। হেডফোন যুক্ত মাস্কঃ 

মুখে মাস্ক পড়ে ফোনে কথা বলা ভীষণ মুশকিল , অপরপক্ষের কাছেও পরিস্কার ভাবে কথা পৌঁছায় না । আবার মাস্ক খুলে কথা বলতে গেলে কোরোনা ভাইরাসের ভয় , তাই মাস্কফোন নামের একটি কোম্পানী মার্কেটে নিয়ে এলো এমন একটি মাস্ক যেটার ভিতরে থাকবে ইনবিল্ট ইয়ারফোন । মাস্কের দুই প্রান্তে লাগানো থাকবে উন্নত কোয়ালিটির ইয়ারবাড আর মাস্কের ভিতরে থাকবে একটা  নয়েস ফ্রী ভালো মাইক্রোফোন  । মাস্কের বাইরের লেয়ারের উপরে ভলিউম আপ ডাউন ও প্লে-পস বটন থাকবে । ব্লুটুথ দ্বারা ফোনের সাথে কানেক্ট করে নিয়ে অনায়াসে কথা বলা বা গান শোনা যাবে । মাইক্রোফোনটি মাস্কের ভিতরের দিকে থাকার কারনে কথাও শোনা যাবে বেশ পরিস্কার । তবে শুধু গান শোনাই নয় ,  বেশ কয়েকটি লেয়ার  দ্বারা ফিল্টার হয়ে তবেই বায়ু ভিতরে প্রবেশ করতে পারবে । N95 প্রোটেকশন থাকবে মাস্কের মধ্যে । কোনোরকম ভাইরাস , ব্যাকটেরিয়া তো বটেই ধুলিকনা বা উগ্র গন্ধ আটকে দেওয়ার ক্ষমতাও রাখবে এই মাস্কটি । মাস্কটি জেন্টল ওয়াশ বা স্যানিটাইজ করে পুনরায় ব্যবহার করতে হবে । মাস্কটির দাম ৪৯.৯৯ ডলার অর্থাৎ ভারতীয় মুদ্রায় প্রায় ৩৬৫০ টাকা । 



২। সুপার TECH মাস্ক - অ্যাপের সাথে যুক্ত থাকে - 

Airpop কোম্পানী মার্কেটে নিয়ে এলো N-99 প্রোটেকশন যুক্ত সুপার স্মার্ট মাস্ক । এই মাস্কের বিশেষত্ব হল - মাস্কটি পড়লেই এটি ব্লুটুথ টেকনোলজির সাহায্যে ফোনের সাথে যুক্ত হয়ে যাবে । ফোনের একটি অ্যাপের মাধ্যমে আপনি দেখতে পারবেন আপনি কতক্ষন মাস্ক পড়েছেন , কত বার শ্বাস নিয়েছেন এবং মাস্কের ফিল্টারের কোয়ালিটি কতটা ভালো আছে ? মাস্কের ফিল্টার খারাপ হয়ে গেলে নতুন ফিল্টার লাগানোর অ্যালার্ট পাবেন অ্যাপ থেকে । নতুন ফিল্টার লাগানোর আগে সেটা জেনুইন কিনা পরিক্ষা করে নিতে পারবেন কোড স্ক্যান করে । এই মাস্কের দাম ভারতীয় মূদ্রায় প্রায় ১০,০০০ টাকা । 



৩। UV - প্রোটেক্টেড মাস্ক -

প্রকৃতির ক্ষতিকারক আল্ট্রা ভায়োলেট রশ্মির একটি ভালো দিক হল - এই রশ্মী অনায়াসে জীবানু নাশ করতে পারে । তাই এই রশ্মীকে কাজে লাগিয়ে  কোভিড - ১৯ কে ধ্বংস করার জন্য তৈরি করা হয়েছে এই আত্যাধুনিক মাস্ক । এই মাস্কে আছে ব্যাটারি , UV - রশ্মি নিঃসরন করতে পারে এমন লাইট , হাই প্রোটেক্টিভ ডবল লেয়ার শিল্ড , হাই কোয়ালিটি এয়ার ফিল্টার । বাইরের বাতাস এই মাস্কের ভিতর দিয়ে পাশ করার সময় UV রশ্মী নির্গত হয়ে সমস্ত ভাইরাসদের ধ্বংস করে ফেলে । এবং এই ক্ষতিকারক রশ্মী যাতে কোনোভাবেই চোখে না লেগে যায় তার জন্য ডবল লেয়ার প্রোটেকশন দেওয়া থাকে । কোম্পানীর দাবি 99.99% ভাইরাস মারতে সক্ষম এই স্পেশাল মাস্ক । দাম $99 অর্থাৎ ভারতীয় ৭৩০০ টাকা । 



এমন হাই টেক মাস্ক ব্যবহার করুন না করুন সবাইকে জানিয়ে দিতে পারেন । 





বাজারে এলো Bluetooth Ear Buds ও আলট্রা ভায়োলেট প্রোটেকশন যুক্ত হাই টেক মাস্ক - উন্নত টেকনোলজি , উন্নত মাস্কের দাম **৫০ /- টাকা ? বাজারে এলো Bluetooth Ear Buds ও আলট্রা ভায়োলেট প্রোটেকশন যুক্ত হাই টেক মাস্ক - উন্নত টেকনোলজি , উন্নত মাস্কের দাম **৫০ /- টাকা ? Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১ Rating: 5

Telegram নয় , Sandes হল ভারতীয় Whatsapp - সরকারী ভাবে

ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১

 Make in India ।।  আত্মনির্ভর ভারত ।। নিজস্ব অ্যাপ  ' সন্দেশ '

সন্দেশ , না উপেন্দ্রকিশোর রায়ের পত্রিকা নয় । ভারতের নিজস্ব মেসেজিং অ্যাপ ' সন্দেশ ' । ফেসবুক কোম্পানীর Whatsapp কে বয়কট করার জন্য অনেকেই টেলিগ্রাম ব্যবহার করেন ।  অনেকের মনে ভুল ধারনা আছে যে Telegram ভারতীয় অ্যাপ । খুব বুদ্ধি করে এই মিথ্যা তথ্য সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রচার করা হয়েছে এবং অনেকেই এই তথ্য ভেরিফাই না করে শেয়ার করে থাকেন । তাই আপনি অন্তত জেনে রাখুন - ২০১৩ সালে Telegram তৈরি করেছিলেন Nikolai Durov and Pavel Durov নামের রাশিয়ান দুই ভাই । অ্যাপটি রাশিয়ায় তৈরি হয়ে পরবর্তীতে জার্মানি থেকে নিয়ন্ত্রিত হয় । ২০১৩ সাল থেকে এই অ্যাপটি চলছে এবং অনেকেই Whatsapp এর প্রতিদ্বন্ধী হিসাবে ভারতে তৈরি ভারতীয় অ্যাপ ভেবে নিশ্চিন্তে Telegram ব্যবহার করেন । কিন্ত এটা একটা বড় ভুল - এবং এতে দেশেরই ক্ষতি হচ্ছে ,  এই কারনেই ভারত সরকার এর National Informatics Centre (NIC) বিভাগ থেকে সাধারন মানুষের জন্য ভারতীয় মেসেজিং অ্যাপ লঞ্চ করা হলো । 

অবশ্য অনেক আগে থেকেই SANDES অ্যাপটি ভারতীয় সরকারী কর্মচারীদের জন্য Government Instant Messaging System (GIMS) নামে চলে আসছিল । এতদিন GIMS ব্যবহার করতে পারতেন কেবলমাত্র সরাকারী অফিসাররাই । কিন্ত এখন থেকে যে কোনো ভারতীয় জনতা এই অ্যাপটি ডাউনলোড করে ব্যাবহার করতে পারবেন । 


সন্দেশ অ্যাপে বিশেষ কিছু সুবিধা আছে যেমন - 

মোবাইল নাম্বার ছাড়া কেবলমাত্র ইমেইল আইডি দিয়েও এখানে রেজিস্টার করা যায় , তবে এখন কেবলমাত্র @gov.in যুক্ত ইমেইলকেই অর্থাৎ সরকারী ইমেইলকেই বৈধ হিসাবে গন্য করা হয়েছে । অর্থাৎ , কেবলমাত্র সরকারী কর্মচারী যারা @gov.in ইমেইল করার অনুমতি পেয়েছেন তারা ইমেইল দিয়ে রেজিস্টার করতে পারবেন । বাকি জনতার ক্ষেত্রে মোবাইল নাম্বার ব্যাবহার করেই রেজিস্টার করতে হবে । 

আপনি একই সাথে দুটো নাম্বারে সন্দেশ অ্যাপ ব্যবহার করতে পারবেন না । তবে মোবাইলে নাম্বার চেঞ্জ করার সুবিধা এতে আছে । 

এই সন্দেশ অ্যাপে  Whatsapp এর মতো সহজেই লেখা , ছবি , ভিডিও শেয়ার করা যাবে । সরকারী কর্মীদের জন্য থাকবে ভেরিফায়েড টিক মার্ক চিহ্ন । সরকারী বিভিন্ন নোটিফিকেশন , জেনুইন খবর সরাসরী আপনার ফোনে চলে আসবে । আর সবথেকে বড় ব্যাপার হল - অন্যান্য মেসেজিং অ্যাপের মতো এই অ্যাপ আপনার ব্যাক্তিগত তথ্য কোনো বিজ্ঞাপন দাতা কে বিক্রি করবে না। 

সন্দেশ অ্যাপটি এখনো প্লে স্টোরে তোলা হয়নি । আপনি এই অ্যাপ ডাউনলোড করতে পারবেন সরকারী ওয়েবসাইট থেকে - https://www.gims.gov.in/dash/dlink

সরাকারী উদ্যোগে আরেকটি মেসেজিং অ্যাপ Samvad ( সংবাদ ) তৈরি করা হচ্ছে এবং খুব তাড়াতাড়ি সাধারন জনতার জন্য অ্যাপটি লঞ্চ করা হবে । 

কিভাবে রেজিস্টার করবেন ? 

উপরে দেওয়া লিঙ্কে গিয়ে সরকারী ওয়েবসাইট থেকে অ্যাপটি ডাউনলোড করে নিতে পারেন । প্রথমেই অ্যাপ কিছু অনুমতি চাইবে । অনুমতি দেওয়ার পর আপনার মোবাইল নাম্বার দিয়ে Send OTP বটনে ক্লিক করলে আপনার নাম্বার একটি ওয়ান টাইম পাসওয়ার্ড আসবে । ৬ সংখ্যার এই পাসওয়ার্ডটি নির্দিষ্ট স্থানে লিখে ভেরিফাই বটনে ক্লিক করলে আপনার নাম লেখার একটি ঘর আসবে । নাম লেখার পর নেক্সট করলে আপনার কন্ট্যাক্ট লিস্ট স্ক্যান করে কে কে এই অ্যাপ ব্যবহার করছে সেটা দেখিয়ে দেবে । সব ঠিকঠাক দেওয়ার পর একটি ওয়েলকাম মেসেজ পাবেন । 



লেখাটি শেয়ার করে আপনার পরিচিত ও বন্ধুদের ভারতীয় অ্যাপ ব্যবহারে উৎসাহ যোগাতে পারেন । 


Telegram নয় , Sandes হল ভারতীয় Whatsapp - সরকারী ভাবে Telegram নয় , Sandes হল ভারতীয় Whatsapp - সরকারী ভাবে Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১ Rating: 5

মধ্যবিত্তের সাধ্যের মধ্যে টাটার নতুন গাড়ি - মাইলেজ ২৭ কিমি

ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১

 টাটা মানেই বিশ্বাস , টাটা মানেই ভরসা । এখন টাটা মানেই দেশের অহংকার । ভারতের টাটা কোম্পানী বিদেশী গাড়ি কোম্পানী জাগুয়ার ও ল্যান্ডরোভার দের কিনে নেওয়ার পর থেকে সারা পৃথিবী জুড়ে ফোর হুইলার মার্কেটে রাজত্ব করছে । তবে ভারতীয় মার্কেটে মিড সেকশন কারের রেঞ্জ দখল করে আছে মারুতি কোম্পানী । কয়েক বছর ধরে রেনল্ট কোম্পানীও তাদের কুইড গাড়ির সাহায্যে এই ফিল্ডে ভালো জায়গা করে নিয়েছে । 

মিড সেকশন এবং লোয়ার সেকশনের মার্কেট নিজেদের দখলে আনার জন্য টাটা মার্কেটে এনেছিল ন্যানো গাড়ি , কিন্ত বিভিন্ন রাজনৈতিক সমস্যায় ন্যানো গাড়ি এখন হারিয়ে গেছে সময়ের অন্ধকারে । তাই বেশ কিছু সময় পরে টাটা পুরোদমে প্রবেশ করতে চলেছে মিড রেঞ্জ ভালো গাড়ির মার্কেটে । সেই কারনেই - আনুমানিক আগামী মার্চ মাসের ১৪ তারিখ ২০২১ সাল,  টাটা কোম্পানী বাজারে আনতে চলেছে তাদের ধামাকাদার নতুন গাড়ি টাটা HBX , লুপ্তপ্রায় পাখী হর্নবিলের নাম অনুসারে এই গাড়িটির নামকরন করা হয়েছে HBX । বাজারে থাকা Renault KWID এর সাথে সরাসরি পাল্লা দিতে টাটা এই গাড়িটি আনতে চলেছে । 

গাড়ির ছবি- 



Tata HBX এর দৈর্ঘ্য হবে 12.59 ফুট এবং চওড়াতে 5.97 ফুট মাটি থেকে গাড়ির মাথা পর্যন্ত উচ্চতা হবে  5.36 ফুট  , যথেষ্ট পরিমান গ্রাউন্ড ক্লিয়ারেন্সের সাথে থাকবে 2,450 mm এর বড় সাইজের চাকা । 


টাটার এই গাড়িটি তৈরি হবে ALFA (Agile, Light, Flexible, Advanced) আর্কিটেকচার ব্যবহার করে । এর ইঞ্জিন ক্যাপাসিটি থাকবে 1198CC

খুব হাই স্টাইল SUV এর মতো লুক দেওয়ার জন্য সামনে থাকবে split headlamp setup আর পিছনে থাকবে উন্নত মানের অ্যারো স্টাইলের টেইল লাইট । 

ইন্টেরিয়ার হবে হাই ক্লাস । সেন্ট্রাল লকিং সিস্টেম , পাওয়ার উইন্ডো , ৭ ইঞ্চি ডিজিটাল টাচ স্ক্রিন জিপিএস ট্র্যাকার ও infotainment system , Harman কোম্পানীর প্রিমিয়াম অডিও সিস্টেম । 


বাজারে বহুল বিক্রিত মারুতি সুইফট , এস্প্রেসো ও রেনো কুইড কে সরাসরী পাল্লা দেওয়ার জন্য টাটা এর দাম রেখেছে ৪.৫ - ৫ লাখের মধ্যে । বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা গিয়েছে টাটার এই নতুন গাড়ি ১ লিটার পেট্রোলে ২২-২৭ কিমি মাইলেজ দিতে পারবে । যদিও ফাইনাল প্রাইস ও সঠিক মাইলেজ জানা যাবে ১৪ই মার্চের পর । 


মধ্যবিত্তের সাধ্যের মধ্যে টাটার নতুন গাড়ি - মাইলেজ ২৭ কিমি মধ্যবিত্তের সাধ্যের মধ্যে টাটার নতুন গাড়ি - মাইলেজ ২৭ কিমি Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৯, ২০২১ Rating: 5

"প্রেম হল বিনিসুতোর মালা" - প্রমথ চৌধুরীর অসাধারন কিছু কথা

ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১


☞ অতি বিজ্ঞাপিত জিনিসের প্রতি আমার শ্রদ্ধা অতিক্রম কারণ মানবহৃদয়ের স্বাভাবিক দুর্বলতা রুপোর বিজ্ঞাপনের বল এবং মানব-মনের সরল বিশ্বাস এর উপর বিজ্ঞাপনের ছল প্রতিষ্ঠিত

☞ অন্ধকারের একটা অটল সৌন্দর্য আছে এবং তার অন্তরের গুপ্ত শক্তি নিহিত থাকে । যে ফুল দিনে ফোটে, রাত্রে তার জন্ম হয় একথা আমরা সকলেই জানি । সুতরাং নবযুগে যে সকল মনোভাব প্রস্ফুটিত হয়ে উঠেছে তার অনেক গুলির বীজ মধ্য যুগে বপন করা হয়েছিল । 

☞ আমরা মুখে কি বলি তার চাইতে আমরা মনে কিভাবে তার মূল্য আমাদের কাছে ঢের বেশি কেননা সত্যের জ্ঞান না হলে মানুষ সত্য কথা বলতে পারে না । 

 ☞ ভুল করেছি - এই জ্ঞান জন্মানো মাত্র সেই ভুল তৎক্ষণাৎ সংশোধন করা যায় না কিন্তু মনের স্বাধীনতা একবার লাভ করিতে পারিলে ব্যবহারের অনুরূপ পরিবর্তন শুধু সময় সাপেক্ষ । 

☞ সকলেই মরে, কিন্তু সকলেই আর প্রেমে পড়ে না । 

☞ প্রেম বস্তুটি হচ্ছে মূল্যহীন ফুলের বিনি সুতোর মালা

☞ পুরাকালে মানুষ যা কিছু ঘটে গেছে তার উদ্দেশ্য হচ্ছে মানুষকে সমাজ হতে আলগা করা , দু-চার জনকে বহুলোক হতে বিচ্ছিন্ন করা । অপরপক্ষে নব যুগের ধর্ম হচ্ছে মানুষের সাথে মানুষের মিলন করা সমগ্র সমাজকে ভ্রাতৃত্ববন্ধনে আবদ্ধ করা ,কাউকেই ছাড়া নয় ,কাউকেই ছাড়তে দেওয়া নয় । 

☞ লেখক এবং পাঠকদের মধ্যে এখন স্কুলমাস্টার দণ্ডায়মান । মধ্যস্থদের কৃপায় আমাদের সঙ্গে কবির মনের মিলন দূরে যায় । চার চক্ষুর মিলন ঘটে না । 

☞ এদেশে লাইব্রেরী সার্থকতা হাসপাতালের চাইতে কিছু কম নয় এবং স্কুল-কলেজের চাইতে কিছু বেশি । 

☞ তাকেই যথার্থ সমালোচক বলে স্বীকার করি যিনি সাহিত্যের যথার্থ রসিক।

☞ সাহিত্যের হাসির শুধু মুখের হাসি নয় মনের হাসি হাসি হচ্ছে সামাজিক জনতার প্রতি প্রাণের বক্রোক্তি সামাজিক মিথ্যার প্রতি বক্রদৃষ্টি 

☞ একমাত্র আনন্দের স্পর্শে মানুষের মন ও প্রাণ সজীব সতেজ হয়ে উঠে সুতরাং সাহিত্যচর্চার আনন্দ থেকে বঞ্চিত হওয়ার অর্থ হচ্ছে জীবনীশক্তি হ্রাস করা । 

☞ শ্রুতির অর্থ হচ্ছে সেই স্বর যা কানে শোনা যায় না ,যেমন দর্শনের অর্থ হচ্ছে সেই সত্য যা চোখে দেখা যায় না । যেমন দর্শন দেখবার জন্য দিব্যচক্ষু চাই । তেমন শ্রুতি শোনার জন্য দিব্যকর্ণ চাই ।

☞ বড়োকে ছোটর ভিতর ধরে রাখাই হচ্ছে আর্ট এর উদ্দেশ্য । 

☞ উকিল সমাজের একটা নীতি অথবা রীতি আছে যা সকলেই মান্য করে । সকলের স্ত্রীকে পরস্ত্রীর মত দেখে অর্থাৎ কেহই প্রকাশ্যে তার দিকে নজর দেয় না । 

☞ উন্নতি যে পথে পথে অবনতি সাপেক্ষ তার বৈজ্ঞানিক প্রমাণ আছে । 

☞ প্রতি কবির মন এক একটি স্বতন্ত্র রসের উৎস। কবির কার্য হচ্ছে সামাজিক মনকে সরস করা । কবির মনের সঙ্গে অবশ্য সামাজিক মনের আদান-প্রদানের সম্পর্ক আছে।  কবি কিন্তু সমাজের নিকট হতে যা গ্রহণ করেন  সমাজকে তার চেয়ে ঢের বেশি দান করেন । যদি কেউ প্রশ্ন করেন যে কবি এই অতিরিক্ত রস কোথা হতে সংগ্রহ করেন , তার উত্তরে আমরা বলব আধ্যাত্মিক জগত হতে । সে জগত অবাস্তবও নয় এবং তা পরম ব্যোমেতে অবস্থিতি করে না । 

"প্রেম হল বিনিসুতোর মালা" - প্রমথ চৌধুরীর অসাধারন কিছু কথা "প্রেম হল বিনিসুতোর মালা" - প্রমথ চৌধুরীর অসাধারন কিছু কথা Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৮, ২০২১ Rating: 5

Apple কোম্পানীর ইলেকট্রিক কার - ১ বার চার্জে চলবে ৭৫০ কিমি

ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১

 

Apple ব্রান্ডের সবথেকে দামি প্রোডাক্ট হলো তাদের ব্র্যান্ড ভ্যালু । ৭০ হাজারের আই-প্যাড ,  ১ লক্ষ টাকার আই ফোন বা আড়াই লাখের ল্যাপটপ হোক , অনলাইন ও অফলাইন মার্কেটে সবই হট সেলিং । বলা হয় একবার যে ব্যাক্তি অ্যাপেল কোম্পানীর কোনো প্রোডাক্ট ব্যবহার করবেন তিনি আর কোনোদিন ঐ জিনিস অন্য ব্র্যান্ডের ব্যবহার করতে পারবেন না ।  অ্যাপেল কোম্পানী এমন অসাধারন ব্র্যান্ড ভ্যালু তৈরি করেছে অসাধারন কোয়ালিটির প্রোডাক্ট ডিজাইন করেই । 

 অ্যাপেল কোম্পানীর প্রতিটি প্রোডাক্টিই ছিল যুগান্তকারী । একেবারে নতুন টেকনোলজি ব্যবহার করা থেকে শুরু করে অভাবনীয় ডিজাইন  অ্যাপেলকে এমন জায়গায় নিয়ে গেছে যেখানে পৃথিবীর আর কোনো কোম্পানী পৌছাতে পারবে না । তাই তাদের এই ব্র্যান্ড ভ্যালুকে কাজে লাগিয়ে তারা প্রবেশ করতে চলেছে অটোমোবাইল মার্কেটে । 

২০১৫ সালে টাইট্যান প্রোজেক্ট নাম দিয়ে  অ্যাপেল কোম্পানীগোপনে শুরু করে চার চাকা তৈরির প্রজেক্ট । ক্রমশ প্রকাশ পায় বিভিন্ন তথ্য । সম্প্রতী জানা গেছে  অ্যাপেল কোম্পানীর এই গাড়ি হবে সম্পূর্ণ ইলেকট্রিক । সামনে পিছনে থাকবে উন্নত এল-ই-ডি লাইট ও উন্নত কামেরা । গাড়ি ফুল চার্জ করতে সময় লাগবে ১ ঘণ্টারও কম । আর একবার চার্জ দিলে ৬০০ থেকে ৭৫০ কিমি পর্যন্ত চলতে পারবে । 
বিভিন্ন সূত্র থেকে অ্যাপেল কারের বেশ কিছু ছবি পাওয়া গেলেও এখনও  অ্যাপেল কোম্পানী অফিসিয়ালি কোনো ছবি প্রকাশ করেনি । ইন্টারনেটে অ্যাপেল কারের সম্ভাব্য ছবি হিসাবে সর্বাধিক প্রচারিত ছবিটি দেওয়া হল - 



মোটামুটি গত ২০১৯ সালের ডিসেম্বর মাসে এই অত্যাধুনিক ইলেকট্রিক কার আনুষ্ঠানিক ভাবে প্রকাশ পাওয়ার সম্ভাবনা ছিল । কিন্তু বিভিন্ন কারনে উক্ত মাসে গাড়িটির প্রকাশ করা হয় না । ২০২০ সালে কোরোনার কারনে এই প্রোজেক্ট স্থগিত রাখা হয় । বিভিন্ন সূত্র থেকে পাওয়া খবর থেকে জানা গেছে পৃথিবীর বড় গাড়ি কোম্পানীর ডিজাইনার দের হায়ার করেছে  অ্যাপেল । ২০২১ এ কাজ চলছে পুরোদমে । এই গাড়ি বাজারে এলে এর দাম হতে পারে ২২-৩০ লক্ষের মধ্যে বলে নেটিজেনরা মনে করেন । তবে ,  এই সুপার কার কবে আসছে সেটা শুধুই সময়ের অপেক্ষা । 





Apple কোম্পানীর ইলেকট্রিক কার - ১ বার চার্জে চলবে ৭৫০ কিমি Apple কোম্পানীর ইলেকট্রিক কার - ১ বার চার্জে চলবে ৭৫০ কিমি Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১ Rating: 5

১ বার চার্জে চলবে ১০০ কিলোমিটার VESPA-র নতুন ই-বাইক

ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১

 ইটালিয়ান কোম্পানী ভেসপা ভারতীয় মার্কেটের জন্য নিয়ে এলো নতুন ই-বাইক Vespa Elettrica । দাম কম , কাজ বেশী এই বাইক একবার ফুল চার্জ দিলে ১০০ কিমি চলবে বলে ভেসপা কোম্পানী জানিয়েছে । 


ভারতের ইলেকট্রিক স্কুটার বাজারে বেশ কয়েক বছর ধরেই চলছে জোর প্রতিযোগিতা। প্রথম সারির সবকটি কোম্পানীই  গ্রাহকদের সুবিধার কথা মাথায় রেখে নিয়ে আসছে একের পর এক ইলেকট্রিক বাইক এবং স্কুটার।  হিরো , টিভিএস - এর মতো বড় কোম্পানীর সাথে পাল্লা দিয়ে নতুন স্টার্ট আপ কোম্পানী এথার - তাদের ইলেক্ট্রিক স্কুটার ও বাইকের জায়গা করে নিতে পেরেছে ।  

এই মার্কেটের দখল নিতে প্রবেশ করলো ইটালিয়ান কোম্পানী ভেসপা । বলাই বাহুল্য স্কুটার প্রস্তুতিতে  যুগান্তকারী কাজ করে দেখিয়েছে ভেসপা । বহু বছর ধরে তাদের তৈরি মডেল সারা পৃথিবীতে ১ নং স্কুটারের জায়গা দখল করে রেখেছে । তবে এই সব মডেলগুলোই ছিল পেট্রোল ইঞ্জিন । কিন্ত ভবিষ্যতের কথা মাথায় রেখে ভেসপা আনতে চলেছে আধুনিক ইলেক্ট্রিক ইঞ্জিন । এই নতুন বাইকের নামকরন করা হয়েছে ভেসপা ইলেক্ট্রিকা । 

ভেসপার নতুন এই স্কুটারে আছে - ৪kW মোটোর আর ৪৮ ভোল্ট ৮৬ এএইচ লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি । ভেসপা ইলেক্ট্রিকার ২টি ভার্সন লঞ্চ হবে তার মধ্যে ১ টির সর্বাধিক গতিবেগ ঘন্টায় ৪৫ কিমি অন্যটির ঘন্টায় ৭০ কিমি । এ ছাড়াও এই ইলেকট্রিক স্কুটারে থাকছে এলইডি হেড ল্যাম্প, ইউএসবি চার্জিং পয়েন্ট, টিউবলেস টায়ার, ফুল বডি কালার এল-ই ডি লাইটিং ( কাস্টমাইজেবল) ,   রিমোট বুট ওপেনিং-এর মতো ফিচার। 

ভেসপা কোম্পানীর দাবি - এই ই-বাইক হবে সুপার সাইলেন্ট । বাইক চালানোর সময় প্রাকৃতিক শব্দ অনুভব ও উপভোগ করতে পারবেন । 

এছাড়াও এই বাইকে থাকছে Digital স্পিডোমিটার , Digital ট্রিপোমিটার , Digital ফুয়েল গজ , আর আডভান্স Digital কন্সোল । বিশেষ টেকনলজির মাধ্যমে স্কুটার রিভার্স গিয়ারে নিয়ে যাওয়াও হবে খুব সহজ । 


আরো পড়ুনঃ আসতে চলেছে অ্যাপেল কোম্পানীর সুপার ইলেকট্রিক কার , ফুল চার্জে চলবে ৭৫০ কিমি 


ডিজাইনের দিক থেকে দেখতে গেলে ভেসপার ধারে কাছে কোনো কোম্পানী আসতে পারবে না , এই ই বাইক হবে ভেসপা পেট্রোল স্কুটারের মতোই সুপার স্টাইলিশ বডি প্যানেল এবং ডুয়াল-টোনের পেইন্ট স্কিম। ব্লুটুথ টেকনোলজির মাধ্যমে স্কুটার সর্বদা ফোনের সাথে কানেক্টেড থাকবে । 

 লিথিয়াম-আয়ন ব্যাটারি দ্বারা চালিত এই স্কুটারে ব্যাটারি রিপ্লেসমেন্টের সঙ্গে থাকছে তিন বছরের ওয়ার‌্যান্টি। ভারতীয় বাজারে এই স্কুটারের দাম হতে চলেছে ৯০০০০ টাকা - যা ভেসপার ব্র্যান্ড ভ্যালু হিসাবে অনেক কম । স্কুটারের সাথে ভেসপা কোম্পানী বিক্রি করছে প্রায় ৭০ রকমের আক্সেসরিজ । 

২০২১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসের শেষ সপ্তাহে ভারতীয় মার্কেটে অফিসিয়াল ভাবে লঞ্চ করার কথা ভেসপার এই ই-বাইক । 

আরো বিস্তারিত ভাবে স্পেসিফিকেশন ও লঞ্চ ডেট দেখতে চাইলে ভিসিট করতে পারেন ভেসপার নিজস্ব ওয়েবসাইট - https://www.vespa.com/en_EN/models/elettrica/

১ বার চার্জে চলবে ১০০ কিলোমিটার VESPA-র নতুন ই-বাইক ১ বার চার্জে চলবে ১০০ কিলোমিটার VESPA-র নতুন ই-বাইক Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৫, ২০২১ Rating: 5

সাপ্তাহিক রাশিফল ১৪ই ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি

ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১

           


এই সপ্তাহের সব রাশির রাশিফল 


মেষঃ সপ্তাহের প্রথমদিকে ব্যাবসায়িক লাভ । নতুন কাজের ক্ষেত্রে আশাতীত সাফল্য । ঈশ্বরীয় কৃপায় মানসিক বলবৃদ্ধি ও কাজকর্মে উতসাহ । সপ্তাহের মধ্যভাগে জ্ঞাতি পরিজনদের সঙ্গে আপস মীমাংসা । দাম্পত্য জীবনে মনমালিন্যের অবসান । প্রেম পরিনয়ে অহেতুক উত্তেজনা ও আবেগ প্রশমন করা জরুরী । সপ্তাহের অন্তভাগে পারিবারিক সন্তোষ বৃদ্ধি । ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের সহায়তায় কর্ম ক্ষেত্রে জটিলতার অবসান । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় তুলনামূলক ভাবে মনোযোগ বৃদ্ধিতে মানসিক প্রশান্তি । 

বৃষঃ সপ্তাহের প্রথম দিকটা দাম্পত্য জীবনে বাদানুবাদ মনোমালিন্য এড়িয়ে চলা প্রয়োজন । কর্মক্ষেত্রে নিত্ত নৈমিত্তিক জটিলতা মানসিক উদ্বেগের প্রধান ও অন্যতম কারন হয়ে উঠতে পারে । সপ্তাহের মধ্যভাগে ব্যাবসা ক্ষেত্রে নতুন আশার সঞ্চার দেখা দিতে পারে । তবে আবেগের বশবর্তী হয়ে মাত্রা অতিরিক্ত বিনিয়োগ না করাই ভালো । শেয়ার , ফাটকায় লাভের সম্ভাবনা বেশ প্রবল । সপ্তাহের শেষভাগে গৃহ সংস্কার , নির্মাণের উদ্যোগ শুভ হতে পারে । তবে সম্পত্তিজনিত কারনে জ্ঞাতি বিরোধের সম্ভাবনা প্রবল । প্রেম-পরিনয়ে উত্তেজনা , আবেগ পরিহার করে চলুন । 

 মিথুনঃ   সপ্তাহের প্রথম দিকে ব্যাবসায়িক ক্ষেত্রে লাভের যোগ বেশ পরিস্কার । একই সঙ্গে ঋণ বৃদ্ধির যোগ ও প্রবল । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় ও সফলতাতে মানসিক তৃপ্তি । সপ্তাহের মধ্যভাগে কর্ম ক্ষেত্রে আবেগ উত্তেজনা পরিহার করে চলা প্রয়োজন । নতুবা , কর্ম ক্ষেত্রে অস্থিরতা বৃদ্ধির যোগ থাকছে । সপ্তাহের শেষ ভাগে উচ্চ বিদ্যা অর্জনে ও গবেষণামূলক কাজে সফলতা । পারিবারিক ক্ষেত্রে জ্ঞাতি - পরিজনের হৃদয় হীনতায় হতাশা বৃদ্ধি । গৃহ সংস্কার বা নির্মাণের পরিকল্পনা আরো কিছুদিন পিছিয়ে দেওয়া প্রয়োজন । লটারি প্রাপ্তির যোগ বেশ শুভ । 

☞ লোকনাথ বাবার কিছু বানী আপনার জীবনে আশার আলো আনতে পারে । একটু সময় দিয়ে পড়ে নিন । 

কর্কটঃ   এই সপ্তাহের প্রথম দিকে কর্ম সুত্রে দূর যাত্রার প্রয়োজন হতে পারে । বিকল্প কর্ম অনুসন্ধানে সফলতা । সপ্তাহের মধ্যভাগে আয়- উপার্জন বৃদ্ধি । ঋণ পরিশোধ । গৃহ সংস্কার বা নির্মাণের পরিকল্পনা সফল হতে পারে । স্বামী- স্ত্রীর সম্পর্কের উন্নতি । সপ্তাহের অন্তভাগে পুরোনো মামলা মোকোদ্দমায় আইনি জটিলতা বৃদ্ধির যোগ আছে । প্রেম পরিনয়ে পুরানো তিক্ততার অবসান । শেয়ার, ফাটকায় অবিবেচকদের মতো লগ্নী করবেন না । 

সিংহঃ  সপ্তাহের প্রথম দিকে শরীর স্বাস্থ্যের প্রভুত উন্নতি । কর্ম ক্ষেত্রে দায় দায়িত্ব বৃদ্ধি । ব্যাবসাক্ষেত্রে পরিশ্রম অনুযায়ী উপযুক্ত আয়- উপার্জন নাও হতে পারে । সপ্তাহের মধ্যভাগে পারিবারিক সমস্যা বৃদ্ধি । দাম্পত্য কলহ বৃদ্ধির যোগ রয়েছে । অহেতুক উত্তেজনা , মতানৈক্য , মনোমালিন্য এড়িয়ে চলুন । সপ্তাহের শেষের দিকে বিকল্প কর্ম অনুসন্ধানের চেস্টা প্রানপন চালিয়ে যাওয়া প্রয়োজন । আলাপ আলোচনার মাধ্যমে জ্ঞাতি - স্বজন বিরোধের নিস্পত্তিতে উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন । 

কন্যাঃ আলোচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকে জ্ঞাতি পড়শীর অসহযোগিতায় বিষয়সম্পত্তি নিয়ে মনোমালিন্য বাদানুবাদ বৃদ্ধি পাওয়ার যোগা রয়েছে । সপ্তাহের মধ্যভাগে আধ্যাত্বিক কৃপায় শরীর-স্বাস্থ্যের অপ্রত্যাশিত উন্নতি । সন্তানের আচরণে হতাশা বৃদ্ধি । সপ্তাহের মধ্যভাগে অত্যধিক পরিশ্রমে শারীরিক ক্লান্তি । চাকুরীজীবিদের সপ্তাহের শেষ লগ্নে দায়িত্ব বৃদ্ধির যোগ রয়েছে । স্বনিযুক্তি প্রকল্পে যুক্ত ব্যক্তিদের পক্ষে সপ্তাহটা মোটের উপর বেশ আশাব্যঞ্জক ।



তুলাঃ এই সপ্তাহের গোড়ার দিকে ব্যবসা-বাণিজ্যের অগ্রগতি,  বিকল্প কর্মসন্ধান এ সাফল্য ।  সপ্তাহের মধ্যভাগে পারিবারিক বিবাদ মনমালিন্যের নিষ্পত্তি । শেয়ার ,ফাটকাতে  ভেবেচিন্তে বিনিয়োগ করা প্রয়োজন । সপ্তাহের অন্তভাগে দাম্পত্য কলহ বৃদ্ধি পেতে পারে তাই অপ্রয়োজনীয়' আবেগ উত্তেজনা পরিহার করা জরুরি । সন্তানের বিদ্যাশিক্ষায় অগ্রগতিতে মানসিক প্রফুল্লতা বৃদ্ধি । 

বৃশ্চিকঃ আলোচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকে কর্মক্ষেত্রে দক্ষতার স্বীকৃতি পেতে পারেন । প্রয়োজনে বদলি বা সংস্থা পরিবর্তন ঘটার যোগ প্রবল । গুরুজনের পরামর্শে পারিবারিক সমস্যার সমাধান হবে । সপ্তাহের মধ্যভাগে উত্তরাধিকার সূত্রে পাওয়া সম্পত্তির অধিকার নিয়ে জ্ঞাতি জনের সঙ্গে বিরোধ । জনহিতকর কাজের সুবাদে সমাজে প্রভাব প্রতিপত্তি বৃদ্ধি পাবে । সপ্তাহের শেষ ভাগে ব্যবসায় ক্ষেত্রে আয় উপার্জন বৃদ্ধি পাবে প্রেম পরিণয় যাবতীয় মান-অভিমান মনমালিন্যের অবসান হবে । 

ধনুঃ  এই সপ্তাহের প্রথমভাগে বহু শ্রম নিষ্ঠায় কর্মক্ষেত্রে সফলতা ,উচ্চপদ প্রাপ্তি । স্বনিযুক্ত প্রকল্পে যুক্ত ব্যক্তিদের আয় উপার্জন বৃদ্ধির যোগ সুস্পষ্ট । সপ্তাহের মধ্যভাগে প্রেমজ ক্ষেত্রে তিক্ততা ও মনোমালিন্য । দাম্পত্য জীবনে ভুল বোঝাবুঝির অবসান । সপ্তাহের অন্তভাগে গৃহ সংস্কার নির্মাণের পরিকল্পনা সফল হতে পারে । বিদ্যাশিক্ষায় সন্তানের একাগ্রতা বৃদ্ধিতে মানসিক সন্তোষ বৃদ্ধি পাবে ।  অপ্রিয় সত্য এখন থেকে এড়িয়ে চলাই শ্রেয় । আধ্যাত্বিক কৃপায় শরীর-স্বাস্থ্যের অগ্রগতি । মানসিক উদ্বেগের অবসান । 


মকরঃ এই সপ্তাহের গোড়ার দিকে ব্যবসা-বাণিজ্যে অত্যধিক বিনিয়োগ না করাই শ্রেয় ।  ঋণ পরিশোধে মানসিক ভার লাঘব ।  সপ্তাহের মধ্যভাগে কর্মক্ষেত্রে দায়িত্ব বৃদ্ধিতে সহকর্মীদের গুপ্ত শত্রুতা বৃদ্ধি পেতে পারে । সতর্ক থাকা প্রয়োজন  । সপ্তাহের শেষ ভাগে গৃহ সম্পত্তি নিয়ে বিবাদ আইন-আদালত পর্যন্ত গড়াতে পারে ।  আধ্যাত্বিক প্রেরণায় শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে । 


কুম্ভঃ আলোচ্য সপ্তাহের প্রথম দিকে দীর্ঘদিনের কোন আশা আকাঙ্ক্ষা পুরণ হতে পারে । কর্মক্ষেত্রে সহকর্মীর কলকাঠিতে উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের বিরাগভাজন হতে পারেন । সতর্ক থাকা প্রয়োজন ।  সপ্তাহের মধ্যভাগে দাম্পত্য জীবনে ভুল বোঝাবুঝির অবসান ।  প্রেম-পরিণয়ে আশা-আকাঙ্ক্ষার সঞ্চার ।  সপ্তাহের অন্তভাগে উচ্চতর বিদ্যার্জন , গবেষণামূলক কাজের স্বীকৃতি ও  সফলতা প্রাপ্তি । বাড়ি নির্মাণ বা সম্পত্তি সংস্কারের কাজ আপাতত স্থগিত রাখা প্রয়োজন । 

মীনঃ এই সপ্তাহের প্রথম দিকটা বিদ্যার্থীদের পক্ষে বেশ আশাব্যঞ্জক । ব্যবসায়ীরা ব্যবসা ক্ষেত্রে সন্তোষজনক লাভ পাবেন । সপ্তাহের মধ্যভাগে জ্ঞাতি পড়শীর শত্রুতায় বিষয়সম্পত্তি নিয়ে অহেতুক ঝামেলা ঝঞ্ঝাট ।  দাম্পত্য সন্তোষ বজায় থাকবে ।  সপ্তাহের অন্তভাগে কর্মসূত্রে দূরযাত্রার প্রয়োজন হতে পারে  । একাধিক উপায়ে আয়- উপার্জন বৃদ্ধির প্রচেষ্টা ,প্রয়াস সফল হতে পারে । ঐশ্বরিক কৃপায় শরীর স্বাস্থ্যের উন্নতি হবে এবং মানসিক কষ্ট লাঘব হবে । 


সাপ্তাহিক রাশিফল ১৪ই ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি সাপ্তাহিক রাশিফল ১৪ই ফেব্রুয়ারি থেকে ২০ ফেব্রুয়ারি Reviewed by WisdomApps on ফেব্রুয়ারী ১৪, ২০২১ Rating: 5
Blogger দ্বারা পরিচালিত.