কি কি রোগ হতে পারে শিক্ষকদের ?

স্কুল শিক্ষক - প্রাথমিক স্কুল হোক বা হাই-স্কুল , শিক্ষকতা সাধারণভাবে খুব নিরাপদ ও সুখকর পেশা হিসেবেই সবাই মনে করেন। এই পেশায় কাজের সময় থাকে নির্দিষ্ট। আর পেশার পরিবেশ থাকে নির্মল। শিক্ষকতা মাত্রই ছোটাছুটি কম। তাই শারীরিক ধকলও খুব কম হয়। তবুও এই পেশায় বিভিন্ন অসুখ ও সমস্যার সম্ভাবনা থেকেই যায়। শিক্ষকতার পেশায় নিযুক্ত মানুষের কিছু সাধারণ সমস্যা হলো - কাজের ধরণের একঘেয়েমি, ক্লাসরুমের বদ্ধ পরিবেশ, বিভিন্ন মানসিক চাপ ইত্যাদি। সর্বোপরি মানসিক কাজের চাপ থাকলেও নিয়মিত শারীরিক কাজের অভাব থাকায় শরীরের বিভিন্ন পেশী ও অস্থিতে আড়ষ্টতা জনিত বিভিন্ন সমস্যা দেখা দেওয়ারও আশঙ্কা থেকেই যায় । 

এবার সরাসরি শিক্ষকতা পেশার সাথে যুক্ত অসুখের ব্যাপারে কিছু কথা জেনে নেওয়া যাক -


1. স্বরযন্ত্রের সমস্যা: আমরা সবাই জানি স্কুলের শিক্ষক ও শিক্ষিকাদের অনেক বেশি কথা বলতে হয়। কিছু কিছু সময় সমস্ত ছাত্রছাত্রীদের কাছে নিজের স্বর পৌঁছে দিতেই উচ্চস্বরে কথা বলতে হয়।সর্বশিক্ষার নিয়ম অনুযায়ী একটি ক্লাসে শিক্ষক প্রতি মোট ছাত্রছাত্রীর সংখ্যা যা হওয়া উচিৎ তার চেয়ে প্রায় দ্বিগুন , কোথাও বা তিনগুন পরিমান ছাত্রছাত্রীকে থাকে ।   এ অবস্থায় কেবলমাত্র উচ্চস্বরে কথা বলেই বড় হলঘরে প্রতিটি কোনের পড়ুয়াকে নিজের স্বর শোনানো সম্ভব। আমেরিকার একটি সমীক্ষায় দেখা গেছে, প্রায় ৪৭ শতাংশ আমেরিকার শিক্ষক স্বরযন্ত্র সংক্রান্ত সমস্যায় ভোগেন। ভারতে এই সংখ্যা ক্রমশ বাড়ছে । 

2. ‎ভাইরাসজনিত অসুখ: নিয়মিত একটি বদ্ধঘরে ভর্তি মানুষের কাছাকাছি থাকার জন্য স্কুল শিক্ষকদের নানা ধরণের সংক্রামক ব্যাধিতে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা থেকেই যায়। এর মধ্যে উল্লেখযোগ্য কতগুলি সমস্যা হলো - সর্দি কাশি, গলা ব্যথা, ইনফ্লুয়েঞ্জা, সাইনোসাইটিস, শ্বাসনালীর সংক্রমণ, চিকেন পক্স, গুটি বসন্ত ইত্যাদি। এটা দেখা গিয়েছে যে কোনো এক অজানা কারণে শিক্ষকদের মধ্যে চোখের রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি। তেমনই অনেক্ষন দাঁড়িয়ে থাকার জন্য ভেরিকোজ ভেনের সমস্যা হওয়ারও আশঙ্কা থাকে। আর শিক্ষিকাদের মধ্যে একজিমা, ভুলে যাওয়া রোগ হামেশাই দেখা যায়। 

3. ‎মানসিক চাপ: বইয়ের গন্ডি পেরিয়ে পড়ুয়াদের সঠিক জীবনপথে চলার বিভিন্ন শিক্ষা দেওয়ার কাজটিও শিক্ষকরাই করে থাকেন। নানা সংস্কৃতির, নানা জাতি,নানা ধরণের পেশার পরিবার থেকে আসা ছাত্রদের সামাজিক ভাবে গড়ে তুলতে তাদের ভূমিকা অপরিসীম। এই বিশাল দায়িত্ব সামলানোর জন্য তাদের খুব মনোযোগ দিয়ে প্রতিটি শিশু বা কিশোর কিশোরীকে পর্যবেক্ষণ করতে হয়। দরকার মতো পড়ুয়াদের মানসিক সমস্যাতে ত্রাতার ভূমিকায় থাকেন তারা। শিক্ষার্থীদের যেকোনো সমস্যা সমাধানে তাদের সর্বদা তৈরি থাকতে হয়।ফলত যে সমস্যা সৃষ্টি হয় তা হলো এই বিপুল পরিমাণ চাপ রাখতে না পেরে অনেক শিক্ষক শিক্ষিকাই মানসিক চাপের কাছে বিপর্যস্ত হয়ে পড়তে পারেন। এখান থেকেই জন্ম নেয় মাইগ্রেন, টেনশন, মাথা ব্যাথা, অবসাদ ও উদ্বেগের মতো সমস্যা।

4. ‎হিংসা: এক সমীক্ষায় দেখা গিয়েছে আমেরিকায় ২০০৭ সালে ৬ শতাংশ ছাত্রছাত্রী বন্দুক, ছুরি বা বিপজ্জনক অস্ত্র নিয়ে ক্লাসরুমে আসছে। আমাদের দেশে অবশ্য এই সমস্যা এতোটাও গুরুতর নয়। তবে অবাধ ইন্টারনেট ও টেলিভিশনের প্রভাবে এ দেশেও শিশু ও কিশোরদের মধ্যে অপরাধ প্রবণতা ও হিংসা বেড়েই চলেছে। এখন আবার শিক্ষিকারা স্কুলের অন্যান্য শিক্ষাকর্মীদের কাছে হেনস্থার শিকার হয়ে থাকেন।প্রায়ই খবরের কাগজ , টিভিতে এ রকম খবর আমাদের নজরে আসে । যা পরোক্ষ ভাবে হলেও সমস্ত শিক্ষক মহলের উপর এক মানসিক চাপের সৃষ্টি করে। 

5. মাংসপেশির সমস্যা:‎  একটানা খাতা দেখা, ব্ল্যাক বোর্ডে দীর্ঘক্ষণ লেখা ইত্যাদির কারণে ঘাড়, কোমরের ব্যাথা, কব্জি ও আঙুলের মাংসপেশির সমস্যা অর্থাৎ ফ্রোজেন শোল্ডার, টেনিস এলবো, কর্পাল টানেল সিন্ড্রোম ইত্যাদি রোগে আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা বেশি থাকে।

 আপাত দৃষ্টিতে শিক্ষকতা নিতান্তই আরামদায়ক পেশা হলেও এর থেকে সমস্যার আশঙ্কাও কম নয়। নিয়মিত শরীরচর্চা, হাঁটা, ব্যায়াম, যোগা ও প্রাণায়ামের মাধ্যমে ভালো থাকতে পারেন। 


****নীচে দেওয়া Whatsapp বা Facebook আইকনে ক্লিক করে পোস্টটি শেয়ার করুন *** 

কি কি রোগ হতে পারে শিক্ষকদের ? কি কি রোগ হতে পারে শিক্ষকদের ? Reviewed by Kona Dey Chakraborty on September 05, 2018 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.