দই কচু , সাথে চমকে দেওয়ার মত ৫ টি রেসিপি

দই কচু


উপকরণঃ ছোট অথবা গুড়ি কচু ৫০০ গ্রাম, টক দই ২৫০ গ্রাম, তেঁতুল ১টি ছোট গোলা, নুন আন্দাজমতো, জিরে ৫০ গ্রাম, শুকনলঙ্কা ৬/৮টি।
প্রস্তুত প্রণালীঃ কচুগুলো জলে সেদ্ধ করে খোসা ছড়িয়ে ফেলুন। দই ভালো করে ফেটিয়ে নেবেন। তেঁতুলের গোলটা একটু জলে ছেঁকে নিন ও আন্দাজমতো নুন মেশান। জিরে ও লঙ্কা শুকনো কড়াইতে ভেজে গুঁড়ো করে নিন। সেদ্ধ করা কচুগুলোর গায়ে একটা কাঁটার সাহায্যে ছোটছোট গর্ত করে দিন। এবার তেঁতুল গোলা জলে মিনিট পনেরো ভিজিয়ে রাখুন। কচুগুলি জল থেকে তুলে আর একটা পাত্রে রাখুন। ও ফেটানো দই ঢেলে দিন। এবার ওপর থেকে গুঁড়ো মশলা 
 ছড়িয়ে পরিবেশন করুন।

ঝিঙে বাহার

 উপকরণঃ ঝিঙে ৫০০ গ্রাম, নারকেল আধমালা, জিরে ১/২ চা-চামচ, সর্ষে ৩ চা-চামচ, চিনি ৫-৬ চা-চামচ তেল ৫০-৭৫ গ্রাম, নুন আন্দাজ মতো, কাঁচালঙ্কা ৪-৬টি।
প্রস্তুত প্রনালিঃ ঝিঙের খোসা ছাড়িয়ে ছোট টুকরো করে কেটে নিন। নারকেলটা কুরে নিন। কাঁচালঙ্কা মুখ থেকে একটু চিরে নিন। সরষে ভালো করে বেটে নিন। পাত্রে তেল গরম করে জিরে ফোড়ন দিন। ঝিঙেগুলো দিয়ে ভালভাবে ভাজতে থাকুন। একটু ভাজা হলে তাতে দু-কাপ জল, নারকেল কোরা, সরষে বাটা, নুন, চিনি ও কাঁচালঙ্কা দিয়ে দশ মিনিট ফুটতে দিন। আপনার প্রয়োজন মতো ঝোল হলেই নামিয়ে নেবেন।

দই ফুলকপি 

উপকরণঃ ফুলকপি ১ কেজি, পেঁয়াজ ২ টি (স্লাইস করা), পেঁয়াজের রস ৩-৪ টেবিল চামচ, আদার রস ১ টেবিল চামচ, রসুন ৫ কোয়া(থেঁতো করা), লঙ্কাগুঁড়ো ১ চা চামচ, আস্ত গোলমরিচ ৫-৬টি, গুঁড়োহলুদ ১ চা-চামচ, নারকেল বাটা ১ টেবিল চামচ, পোস্তবাটা ১১/২ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচানো ১ মুঠো, এলাচ ২টি(থেঁতো করা), লবঙ্গ ২টি(থেঁতো করা), দারচিনি ১ ইঞ্চি(থেঁতো করা), তেল, নুন, চিনি পরিমাণমতো, ঘন দই ৩/৪ কাপ, সেদ্ধ কড়াইশুঁটি ২ কাপ।
প্রস্তুত প্রণালীঃ আস্ত ফুলকপি অথবা ফুলকপি বড় বড় আকারে কেটেও তৈরি করতে পারেন। আস্ত বা টুকরো করা যাই হোক না কেন, ফুলকপির ধারের পাতা ডাটা সমান করে কেটে ফুলকপি নুন জলে পনেরো মিনিট ভিজিয়ে রাখুন। নুন জল থেকে উঠিয়ে পরিস্কার জলে ধুয়ে, শুকনো কাপড় দিয়ে মুছে নিন। কড়াইতে এক কাপ তেল গরম করে, কুচোনো পেঁয়াজ লাল করে ভেজে উঠিয়ে রাখুন। ফুলকপিতে সামান্য নুন, হলুদ মাখিয়ে একই তেলে লাল করে ভেজে নামিয়ে নিন। প্রেসারকুকারে পাঁচ টেবিল চামচ তেল দিয়ে গরম করুন। গরম তেলে থেঁতো করে দারচিনি, এলাচ, লবঙ্গ ফোড়ন দিন। সব মশলা, পোস্ত, নারকেল ও স্বাদ অনুযায়ী নুন, চিনি দিয়ে কষে নিন। মাঝে মাঝে জলের ছিটে দেবেন। মশলা ভাল করে আধ কাপ গরম জল দিয়ে প্রেসার কুকার ঢেকে দিন। মিনিট পাঁচেক রান্না হলে অর্থাৎ একটা 'সিটি' দিলেই আঁচ থেকে প্রেসার কুকার নামিয়ে ঠাণ্ডা হতে দিন। পরিবেশনের পাত্রে ঢেলে, আস্ত ফুলকপিটা হলেও পাত্রে রাখুন। চারধারে কড়াইশুঁটি সেদ্ধ সাজিয়ে, ঘন দই অল্প নুন দিয়ে ফেটিয়ে ফুলকপির উপর ঢেলে, ধনেপাতা কুচি ও পেঁয়াজকুচি দিয়ে সাজিয়ে পরিবেশন করুন।



ক্যাপ্সিকাম ডিলাইট 

উপকরণঃ কিমা ১ কাপ (সেদ্ধ), ক্যাপ্সিকাম ৪ টি (বড় মাপের), গাজর ১ কাপ (কুরনো), টম্যাটো ১ টি (লাল্‌, মিহি করে বাটা),  মালাই বা দুধের সর আধকাপ, পেঁয়াজ বাটা ৩ টেবিল চামচ, লঙ্কাগুঁড়ো আধ চা-চামচ, রসুন আধ টেবিল চামচ, আদাবাটা আধ টেবিল চামচ, লঙ্কাগুঁড়ো আধ চা-চামচ, কর্ণফ্লাওয়ার আধ কাপ, ময়দা ৩ টেবিল চামচ, গরম মশলা ২ টেবিল চামচ,ভিনিগার ১ টেবিল চামচ, ধনেপাতা কুচি ৪ টেবিল-চামচ, নুন স্বাদমতো, হলুদ আন্দাজ মতো।
প্রস্তুত প্রণালীঃ ক্যাপ্সিকামের বোঁটা কেটে দু ফালি করে কেটে নিন। দেখবেন যেন নীচের  অংশটা লেগে থাকে। ভেতরের বীজগুলো ফেলে দেবেন। ক্যাপ্সিকামের ভেতরের খোলাতে ভালো করে কর্নফ্লাওয়ার মাখিয়ে রাখবেন। কিমা সেদ্ধ তাতে ভিনিগার মাখিয়ে রাখুন। গাজর, ধনেপাতা, টোম্যাটোর রস, আদা, রসুন, পেঁয়াজ, গরমমশলা, নুন, হলুদ সব একসঙ্গে মাখুন। কিমাতে এই আনাজ ও মশলা মিশ্রন বেশ করে মেশান। তৈরি হল পুর। ক্যাপ্সিকামের গায়ের জোড়া জায়গাতে লাগিয়ে দিন। একটা পাত্রে জল ফুটতে দিন। এর মধ্যে আরেকটা পাত্রে এই ক্যাপ্সিকামগুলো সেদ্ধ হতে দিন। দেখবেন জল যেন ক্যাপ্সিকামের পাত্রে এসে না পড়ে। মিনিট দশেক পরে ননস্টিক প্যান সামান্য তেল দিয়ে ক্যাপ্সিকামগুলো ভেজে নিন।

বেকড বাঁধাকপি

উপকরণঃ বাঁধাকপি কচি ১০-১২টা আস্ত পাতা, পনির ২৫০ গ্রাম, কড়াইশুঁটি ১ কাপ(সেদ্ধ করা), টম্যাটো ২ টি (ছোট করে কুচোনো), পার্সলে ১ আঁটি (কুচোনো), কাঁচালঙ্কা ২ টি (বীজ ফেলে কুচোনো), মাখন ৫০ গ্রাম। 
প্রস্তুত প্রণালীঃ বাঁধাকপির পাতা ধুয়ে ফুটন্ত নুন জলে ফেলেই তুলে নিন। ঠাণ্ডা হলে মাঝের শিরাটি একটি ভারী জিনিস দিয়ে সামান্য থেঁতো করুন। পনির চটকিয়ে তার সঙ্গে সামান্য মাখন, কড়াইশুঁটি সেদ্ধ, টম্যাটো কুচি, কাঁচালঙ্কা কুচি, পার্সলে কুচি ও আন্দাজমতো নুন মেখে দিন। বাঁধাকপির পাতার শিরের একপাশে  খানিকটা মিশ্রন দিয়ে অপর পাশটি মুড়ে একসঙ্গে করে একটি টুথ পিক দিয়ে আটকে দিন। এই ভাবে সব পাতা গড়া হলে বেকিং ট্রেতে সামান্য মাখন লাগিয়ে পাতাগুলো সাজিয়ে আগে থেকে গরম করে রাখা ওভেনে ঢুকিয়ে একপাশ দশ মিনিট বেক করুন। ট্রে-টি বার করে স্প্যাটুলা দিয়ে পাতাগুলির অপর পাশে উল্টে দিন এবং আরও দশ মিনিট ওভেনে রাখুন।

পোস্ত টম্যাটো

উপকরণঃ টম্যাটো ৩-৪ টি, গাজর ২ টি(মাঝারি), বিট ১ টি(ছোট), ক্যাপ্সিকাম ১ টি (মাঝারি), নারকেল আধখানা (ইচ্ছে না হলে দেবেন না), পেঁয়াজ ১ টি (ছোট), কাঁচালঙ্কা ৩-৪টি, পোস্ত ৪ টেবিল চামচ, এলাচ ২-৩ টি (আস্ত), নুন ও চিনি স্বাদঅনুযায়ী, তেল প্রয়োজনমতো, জল আন্দাজ মতো।
প্রস্তুত প্রণালীঃ পেঁয়াজ ও কাঁচালঙ্কা একসঙ্গে বেটে নিন। পোস্ত বাটুন। টম্যাটো টুকরো করুন। নারকোল ও ক্যাপ্সিকাম আলাদা করে বাটুন। গাজর কুরে নিন। কড়াইতে তেল গরম করে এলাচ দিয়ে সামান্য কষুন। এতে ক্যাপ্সিকামবাটাও দেবেন, নারকোল ও গাজর কোরানো দিন। নেড়েচেড়ে টম্যাটো ও আলু দিন। হালকা ভেজে সেদ্ধ হওয়ার জন্য অল্প জল দিন। নুন ও চিনি দিয়ে ঢিমে আঁচে দশ-বারো মিনিট রাখুন। ঘন হলে নামিয়ে দিন।


ভালো লাগলে শেয়ার করুন 

দই কচু , সাথে চমকে দেওয়ার মত ৫ টি রেসিপি দই কচু , সাথে চমকে দেওয়ার মত ৫ টি রেসিপি Reviewed by Kona Dey Chakraborty on September 17, 2018 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.