মাছের ৭ টি ভিন্নধরনের রেসিপি শিখে নিন

রসুন-রুই

উপকরণঃ  রুইমাছ ১ কেজি, আস্ত গরম মশলা আন্দাজ মতো, গোটা শুকনোলঙ্কা ২টি , টম্যাটো ৪টি(বড় করে কাটা), কাঁচালঙ্কা ৪-৫টি, ১ টি(আস্ত), দই, নুন ও মিষ্টি প্রয়োজনমত, তেল ও ঘি আন্দাজ মত।
প্রস্তুত প্রনালিঃ  কড়াইতে তেল ও ঘি দিয়ে আঁচে বসান। বড় করে কাটা পেঁয়াজ, আস্ত রসুন, গরমমসলা দিয়ে নাড়াচাড়া করে, গোটা  কাঁচালঙ্কা, শুকনোলঙ্কা,  গোটা টম্যাটো, টুকরো করা মাছ এতে দিন। দই, নুন, মিষ্টি একসঙ্গে ফেটিয়ে কড়াইতে ঢেলে, কড়াই ঢেকে কম আঁচে রান্না হতে দিন। ভালো গন্ধ বের হলে ও মাছ সেদ্ধ হলে আঁচ থেকে নামিয়ে ঢাকা খুলে উপরে ধনেপাতাকুচি ও লঙ্কাকুচি ছড়িয়ে গরম গরম খেতে দিন।

 মাছের সালান 

উপকরণঃ  একটি ছোট সাইজের রুই বা কাতলা মাছ। ফুলকপি বড়-১ টি। পেঁয়াজ ছোট সাইজের- ১টি। একটু আদা। রসুন ১কোয়া। গরমমসলা, লঙ্কাগুঁড়ো, টক দই ১ বড় চামচ। হলুদ,নুন ও সরসের তেল আন্দাজ মত।

প্রস্তুত প্রণালীঃ  পেঁয়াজ কুচি কুচি করে কেটে নিন। আদা ও রসুন বাটুন। মাছ কেটে পরিস্কার করে ধুয়ে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন। ফুলকপি, আলু ও মটরশুঁটি কেটে ছড়িয়ে রাখুন। 
কড়াই তে তেল দিয়ে পেঁয়াজ বাদামি করে ভাজুন। এর সঙ্গে হলুদ, লঙ্কাগুঁড়ো ও বাটা মশলা দিয়ে বেশ করে কষুন।মশলা কসা হলে ওতে তরকারি ছেড়ে আরও পাঁচ মিনিট ভাজুন তরকারি ভাজা ভাজা হয়ে গেলে একটু জল দিয়ে ঢেকে দিন। তরকারি একটু সিদ্ধ হলে ফোটানো টক দই ও নুন  দিয়ে তাতে মাছ গুলি ছেড়ে দিন। কম আঁচে বসিয়ে রাখুন, মাঝে মাঝে নাড়বেন। দই শুকিয়ে এলে একটু জল দিন। মাছ ও তরকারি সিদ্ধ হলে গরম মশলা গুঁড়ো ছড়িয়ে নামিয়ে দিন। 

 লাউপাতায় চিংড়ি মোড়া 

উপকরণঃ কচি লাউ পাতা ৮ টা, কুচো চিংড়ি ৩০০ গ্রাম, নারকেল ১/২ মালা (কুরানো), সরষে ২ চামচ (বাটা), সরষের তেল ২-৩ চা-চামচ, কাঁচালঙ্কা ৪টে, নুন ও হলুদ স্বাদমতো, টুথপিক ৮ টা।

প্রস্তুত প্রণালীঃ চিংড়ি মাছে নুন, হলুদ মাখিয়ে রাখুন। কড়াই আঁচে বসিয়ে তেল, চিংড়ি মাছ, নারকেল কোরা, সরষে বাটা, ও  কাঁচালঙ্কাকুচি একসঙ্গে ঢালুন। নেড়েচেড়ে যখন মাছ গুলো নরম হয়ে আসবে এবং শুকনো হয়ে সামান্য তেল তেল থাকবে তখন নামিয়ে নিন। তৈরি হল পুর। এক-একটি লাউপাতায় খানিকটা করে পুরু ভরে টুথপিক দিয়ে গেঁথে শিঙাড়ার আকার দিন। কড়াই এ তেল দিয়ে মড়কগুলো একটা, দুটো করে দুপিঠ ভেজে, তেল ছেঁকে তুলে রাখুন। ভাতের সঙ্গে গরম গরম পরিবেশন করুন।

মছলি অমৃতসারি

উপকরনঃ রুইমাছ ৮০০ গ্রাম (স্লাইস করা), ভাজার  জন্য বাদামতেল আন্দাজ মত, চাটমশলা ২টেবিল-চামচ, লেবুর খোসাকুরনো(৩ টি লেবুর)। গ্রেভি তৈরির জন্যঃ বেসন ৬০ গ্রাম, ময়দা ৬০ গ্রাম, কর্নফ্লাওয়ার ৬০ গ্রাম, নুন স্বাদমত, ডিম ২ টি, জোয়ান ১৫ গ্রাম, আদা ৩০ গ্রাম(বাটা), রসুন ৪০ গ্রাম(বাটা), শুকনো লঙ্কাগুঁড়ো ৩ টেবিল চামচ, লেবু ১ টি, খাবার রং(কমলা) সামান্য।
প্রস্তুত প্রণালীঃ গ্রেভির সব উপকরন একসঙ্গে গুলে তাতে মাছের স্লাইস ডুবিয়ে রাখুন। এক ঘণ্টা এই ভাবে ভিজিয়ে রাখ্র পর গরম তেলে মুচমুচে করে ভেজে তুলুন। চাট মশলা ও লেবুর রস ছড়িয়ে, লেবু ও পেঁয়াজ দিয়ে পরিবেশন করুন।

ইলিশ বেক

উপকরণঃ ১টি ইলিশ মাছ (বড় দেখে), ২টী পেঁয়াজ (স্লাইস করা), নুন ও গোলমরিচ, এক চা-চামচ পার্সলিপাতা কুচোনো, এক বড় চামচ মাখন বা তেল, দুটি বড় রুটির গুঁড়ো, ১ বা ১/২ চামচ দুধ, দু কাপ জল, এক বড় চামচ ভিনিগার।
প্রস্তুত প্রণালীঃ   মাছটি আঁশ ছাড়িয়ে পেট পরিস্কার করে দশ মিনিট নুন জলে ডুবিয়ে রাখুন।
পরে একটি কাপর দিয়ে ভালো করে  মুছে এবার মাছের পেটের ভিতর পেঁয়াজ, নুন, গোলমরিচ, পার্সলিপাতা, মাখন, রুটির গুঁড়ো ও দুধ একসঙ্গে বেটে নিয়ে পু্রে দিন। কাটা জায়গাটা সেলাই করে বন্ধ করে দিন। এবার মাছের গায়ে  নুন গোলমরিচ, মাখন বা ঘি ভালো করে লাগিয়ে মাইক্রো ওভেন এ বেক করুন, যতক্ষন না জল শুকিয়ে যায়। ঐ মাছের যতটুকু রস থাকবে তাই দিয়েই পরিবেশন করুন।

কই মাছের টক-ঝাল    

উপকরনঃ বড় কই মাছ ৪ টি, সরষে ২ টেবিল চামচ, কাঁচালঙ্কা ২-৩ টি, পাকা তেঁতুল ১০০ গ্রাম, হলুদগুঁড়ো আধ চা-চামচ, লঙ্কাগুঁড়ো আধ চ-চামচ, নুন ও চিনি আন্দাজমত, তেল প্রয়োজন মতো।

প্রস্ততু প্রণালীঃ মাছ গুলো ধুয়ে কেটে নুন হলুদ মাখিয়ে রাখুন। সরষে কাঁচালঙ্কা ও নুন একসঙ্গে বেটে সামান্য জল মিশিয়ে গোলা বানিয়ে রাখুন। পাকা তেঁতুল অল্প জলে ভিজিয়ে রেখে দানা ও ছিবড়ে ফেলে গোলা তৈরি করে রাখুন। এতে অল্প নুন , চিনি ও লঙ্কাগুঁড়ো মেশান। মাছগুলো প্রথমে তেলে হালকা ভেজে নিন। এরপর ফ্রাইপ্যানে অল্প তেল গরম করে এক একটি মাছ নিয়ে একপিঠে সরষে গোলা লাগিয়ে তেলে ছাড়ুন। সরষে মাখানো দিকটা ভাজা হয়ে গেলে উল্টো পিঠে তেঁতুলের গোলা লাগিয়ে মাছটি উল্টেদিন। এই ভাবে চারটি মাছ ভেজে গরম গরম পরিবেশন করুন।   

স্মোকড হিলসা 

উপকরনঃ ইলিশ দেড় কেজি (মুড়ো, লেজা, মাঝের কাটা বাদ দিয়ে ফিলে করা), ভিনিগার, উস্টার সস, সাদা তেল ও নুন আন্দাজ মতো, খই ২০০ গ্রাম্, কাঠকয়লা প্রয়োজন মতো।
বাটার সস-এর জন্য উপকরনঃ মাখন ১০০ গ্রাম, লেবু ১টি(রস করা), নুন, মরিচ স্বাদমতো।
পট্যাটো জুলিয়েনের জন্যঃ আলু কয়েকটা, তেল বেশ খানিকটা, ভেজাবার বরফ ঠাণ্ডা জলের প্রয়োজন মতো।

প্রস্তুত প্রনালিঃ ইলিশ মাছ ধুয়ে, ফিলে দুটোর ওপর ছুরি দিয়ে চারটে তেরছা ও চারটে সোজা লাইন টানুন। আল্প চিরে দিন। ভিনিগার ও  উস্টার সস-এ মাছের ফিলে ভিজিয়ে রাখুন দু ঘণ্টা। দু ঘণ্টা পরে ইলিশের কাঁটা ছাড়ান। চিরে রাখা অংশ থেকে কাঁটা টেনে টেনে বার করতে হবে। সেঁকার আগে নুন ছড়িয়ে নিন। তন্দুরে বা বালতির উনুনে জলন্ত কাঠকয়লা রেখে তাতে খই ফেলুন। বেশ ধোয়া উঠবে। এতে মাছের ফিলে রেখে ঝুরি চাপা দিন। ধোঁয়ায় মাছ রান্না হবে। কুড়ি থেকে তিরিশ মিনিট এভাবে রাখুন। মাছে বাদামি রঙ ধরলে তুলে পরিবেশন পাত্রে রাখুন। পট্যাটো জুলিয়েন, লেবুর স্লাইস ও পার্সলে দিয়ে সাজিয়ে বাটার সস সাহযোগে পরিবেশন করুন। বাটার সস এর জন্য মাখন লাগান। এতে লাবুর রস ও নুন-মরিচ দিন। এছাড়া পট্যাটো জুলিয়েন তৈরির জন্য আলু সরু সরু দেশলাইয়ের কাঠির মতো কেটে, বরফঠান্ডা জলে ভিজিয়ে গরম তেলে ভেজে নিন।



রেসিপি গুলো ভালো লাগলে অবশ্যই ফেসবুক ও হোয়াটসঅ্যাপ এর মাধ্যমে শেয়ার করুন । 
মাছের ৭ টি ভিন্নধরনের রেসিপি শিখে নিন মাছের ৭ টি ভিন্নধরনের রেসিপি শিখে নিন  Reviewed by Kona Dey Chakraborty on September 04, 2018 Rating: 5

No comments:

Powered by Blogger.